Home » মতামত » বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে ড. আকবর আলি খানের বিশ্লেষণ

বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে ড. আকবর আলি খানের বিশ্লেষণ

Akbar Ali Khan picবর্তমান পরিস্থিতি খুবই উদ্বেগজনক বলে মনে হচ্ছে। বাংলাদেশে এখন যা ঘটছে, তাহলো দীর্ঘদিন ধরে সাংঘর্ষিক রাজনীতির ফসল। যতোই নির্বাচন কাছে এগিয়ে আসছে, ততোই এই সাংঘর্ষিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি জোরালো হয়ে উঠছে। আর এর সঙ্গে আরো উপসর্গ দেখা দিয়েছে যেমন একদিকে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার অন্যদিকে, বিভিন্ন ধর্মভিত্তিক রাজনৈতিক সংগঠনের উত্থান এগুলো সবই সাংঘর্ষিক রাজনীতিকে তীব্রতর করে তুলছে। এই প্রেক্ষিতে যদি বড় রাজনৈতিক দলগুলো সহিষ্ণুতা বজায় রেখে একে অপরের সঙ্গে শ্রদ্ধাশীল হয়ে মতৈক্য পৌঁছুতে না পারে, তাহলে একটি অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ নির্বাচন সুদূর পরাহত বলে আমাদের কাছে মনে হয়। কিন্তু সে ধরনের পরিবেশ সৃষ্টির জন্য, যে ধরনের উদ্যোগ প্রয়োজন তাও দেখা যাচ্ছে না। কারণ, সে ধরনের পরিবেশ সৃষ্টি করতে হলে, রাজনৈতিক দলগুলোকে একে অপরের প্রতি আক্রমণ কমাতে হবে। প্রধান বিরোধী দলের যারা মামলায় জড়িত আছেন, তারা মুক্তি না পেলে সম্ভবত বিরোধী দল সংলাপের আহ্বানে সাড়া দেবে না। এ সমস্ত মিলিয়েই সংলাপের পরিবেশ সৃষ্টির জন্য যা করা দরকার, তা তো হচ্ছেই না, বরং রোববার যে দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা ঘটেছে, তার ফলে সমস্যা আরো তীব্র হয়ে উঠেছে।

সংলাপের সম্ভাবনা সম্পর্কে এটুকুই বলা যায়, প্রথম থেকেই মনে হচ্ছিল যে, সংলাপের পুরো বিষয়টি বেশিদূর এগোবে না। কারণ, সংলাপের পরিবেশ সৃষ্টির জন্য যেসব পদক্ষেপ নেয়া উচিত, সে সব পদক্ষেপ উভয় দলের পক্ষ থেকে দেখা যাচ্ছে না। তাছাড়া সংলাপ করলেই হবে না, সংলাপের সুফল পেতে হবে। সুফল পেতে হলে তাদের মানসিকতা পরিবর্তনের প্রয়োজন আছে। সেই মানসিকতা হলো দেয়ানেয়া হতে হবে। কেউ সব ছেড়ে দেবে আর কেউ সব পাবে, এটা হবে না। এখনও তারা আশা করছে, অপরপক্ষ সম্পূর্ণভাবে আত্মসমর্পণ করবে। এই ধরনের প্রত্যাশা যতোক্ষণ পর্যন্ত থাকবে, ততোক্ষণ পর্যন্ত সংলাপের সম্ভাবনা ক্ষীণ।

এক্ষেত্রে সরকারের একটি বিশেষ ভূমিকা আছে। তারা রাষ্ট্র পরিচালনা করছেন। কাজেই উত্তেজনা, সংঘাত প্রশমন করা তাদের বড় দায়িত্ব। কিন্তু এই মুহূর্তে সবকিছু ছাপিয়ে উঠেছে রাজনীতি। সবগুলো বড় রাজনৈতিক জোটই প্রতিপক্ষকে ঘায়েলের রাজনৈতিক রণকৌশল নিয়ে ব্যস্ত। সে জন্য দেশের সমস্যার চেয়ে রাজনৈতিক সমস্যাই বড় হয়ে উঠছে।

সামগ্রিকভাবে যদি দুই দলের মধ্যে একটা সর্বনিম্ন পর্যায়ের সম্পর্কও থাকতো, তাহলে পরিস্থিতির এতো অবনতি হতো না। কিন্তু বর্তমানে যে অবস্থায় দুটো রাজনৈতিক জোট রয়েছে, তাদের মধ্যে কোনো আদানপ্রদান নেই, কোনো সুষ্ঠু সংলাপ হওয়ার মতো পরিবেশ পর্যন্ত নেই।।