Home » বিশেষ নিবন্ধ » ৬০ দশক – রাষ্ট্র, রাজনীতি ও মানুষ (পর্ব – ২)

৬০ দশক – রাষ্ট্র, রাজনীতি ও মানুষ (পর্ব – ২)

জিন্নাহর স্বপ্নভঙ্গ ও পাকিস্তানের ভুল যাত্রা

আনু মুহাম্মদ

60's১৯৪৭ সালে রক্তাক্ত ভারত বিভাগের পর খন্ডিত ভারত ক্রমে একটি স্থিতিশীল রাজনৈতিক কাঠামো গড়ে তুলতে সক্ষম হলেও নতুন রাষ্ট্র পাকিস্তান সেরকম কোন কাঠামো গড়ে তুলতে ব্যর্থ হয়। রাষ্ট্র হিসেবে প্রথম থেকেই তার একটা পরিচয় সংকট দেখা দেয়, অস্থিতিশীলতা গ্রাস করে। এর আগে বিশ শতকের প্রথম থেকেই, ভারতবর্ষে বর্ণহিন্দুদের সাম্প্রদায়িক বৈষম্যমূলক নীতির প্রতিক্রিয়া হিসেবে, স্বতন্ত্র অস্তিত্ব রক্ষার বিষয় ক্রমে সর্বস্তরের মুসলমানদের মধ্যে জনপ্রিয় হতে থাকে। অনেক ক্ষেত্রে শ্রেণীগত নিপীড়নও ধর্মীয় নিপীড়নের আকারেই হাজির হতে থাকে। উদীয়মান শিক্ষিত মুসলিম মধ্যবিত্তের মধ্যে সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক বৈষম্যের বিরুদ্ধে ক্ষোভ ক্রমেই দানা বাঁধতে থাকে। নিপীড়ন, বৈষম্য ও তা নিয়ে অসন্তোষ এর উপর ভর করেই মুসলমানদের স্বতন্ত্র বাসভূমি হিসেবে পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার আন্দোলন জোরদার হয়।

বৃটিশদের জন্য হিন্দু মুসলমান এই বিভক্তি ও সংঘাত ছিল খুবই সুবিধাজনক। বৃটিশ বিরোধী অসাম্প্রদায়িক আন্দোলন এতে শুধু বিপর্যস্তই হয়নি, বিস্তৃত কৃষক শ্রমিক আন্দোলনও অনেক ক্ষেত্রে সাম্প্রদায়িক এজেন্ডার মধ্যে হারিয়ে যায়। আর বৃটিশ পৌরহিত্যে যেভাবে ভারত ভাগ হয় তাতে এই অঞ্চলে সাম্রাজ্যবাদী ভিত্তি স্থায়ী করবার ক্ষেত্র পাকাপোক্ত হয়। কেবিনেট মিশন ব্যর্থ হবার পর, বাংলা নামে ভিন্ন রাষ্ট্র গঠনের চেষ্টা ব্যর্থ হবার পর, সাম্প্রদায়িক ভিত্তিতে ভারত ভাগ হয়ে মুুসলমানদের বাসভূমি হিসেবে পাকিস্তান এর উদ্ভব হয়।

কাশ্মীর এবং পাঞ্জাবের সঙ্গে সঙ্গে বাংলাও তখন বিভক্ত হয়। মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠতার কারণে ভোটের মাধ্যমেই পূর্ব বাংলা যুক্ত হয় পাকিস্তানে। দেশভাগের কারণে বিপুলসংখ্যক মুসলমান ভারত থেকে পাকিস্তানে এবং বিপুলসংখ্যক মুসলমান পাকিস্তান থেকে ভারতে চলে যাওয়ার ঘটনা এক ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয়, রক্তপাত ও বিদ্বেষের জন্ম দেয়। এর সবচেয়ে ভয়াবহ রূপ দেখা দেয় বাংলা এবং পাঞ্জাবে। কাশ্মীরের বিভক্তির পর তা নিয়ে দুই্ দেশের সংঘাত এবং কাশ্মীরীদের দুর্ভোগ এতো বছর পরে এখনও চলছে। খেয়াল করবার বিষয় যে, যে সংখ্যক মুসলমান নিয়ে মুসলমানদের রাষ্ট্র পাকিস্তান প্রতিষ্ঠা হলো তার প্রায় সমসংখ্যক মুসলমান ভারতেই থেকে গেলেন। আবার মুসলমানদের বাসভূমি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হলেও পাকিস্তানের পূর্ব ও পশ্চিম দুই প্রান্তেই উল্লেখযোগ্য সংখ্যক হিন্দু জনগোষ্ঠী নিজেদের জন্মভূমি ত্যাগ না করবার সিদ্ধান্ত নিলেন।

পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার পর প্রতিষ্ঠাতাদের মধ্যেই এর রাষ্ট্রচরিত্র নিয়ে বিভিন্ন মত দেখা দেয়। জন্মের প্রেক্ষাপটের কারণেই প্রবল মত ছিল পাকিস্তানকে একটি ধর্মরাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠার। কিন্তু প্রতিষ্ঠার প্রাক্কালে ১৯৪৭ সালের ১১ আগষ্ট প্রথম সংবিধান সভায় প্রথম প্রেসিডেন্ট হিসেবে পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠাতা মুহম্মদ আলী জিন্নাহ যে দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন তা ছিল স্পষ্টতই এর বিপরীত। তিনি স্পষ্ট করেই পাকিস্তানের সকল নাগরিককে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘আপনারা স্বাধীন; আপনারা আপনাদের ধর্মস্থানে যাবার ক্ষেত্রে স্বাধীন। আপনারা যে কোন ধর্ম বা বর্ণ বা বিশ্বাস ধারণ করেন না কেন তার সাথে রাষ্ট্রের কোন সম্পর্ক নেই।’ আরও বললেন, ‘সময়ে হিন্দুরা আর হিন্দু থাকবে না এবং মুসলমানরাও আর মুসলমান থাকবে না, ধর্মীয় অর্থে নয়, কেননা তা প্রত্যেক ব্যক্তির নিজস্ব বিশ্বাসের ব্যাপার, তা হবে রাজনৈতিক অর্থে রাষ্ট্রের নাগরিক হিসেবে।’

(http://www.pakistan.gov.pk/Quaid/speech03.htm)

এই বক্তৃতার ১৩ মাস পর ১৯৪৮ সালের ১১ সেপ্টেম্বর মুহম্মদ আলী জিন্নাহ মৃত্যুবরণ করেন। তাঁর মৃত্যু পাকিস্তানে নেতৃত্বের সংকট শুধু বৃদ্ধি করেনি, পাকিস্তানের পরিচয় সংকটও ঘনীভূত করে। পাকিস্তান আন্দোলনের মূল বক্তব্য ছিল মুসলমানদের স্বার্থরক্ষা করবার জন্য পাকিস্তান রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করা। রাষ্ট্র সম্পর্কে জিন্নাহর এই উত্তরচিন্তা তাঁর সহকর্মীদের মধ্যে তেমন কোন প্রভাব রাখতে পারেনি, রাষ্ট্রনীতিকে প্রভাবিত করবার মতো আর নতুন কোন ধারাও সৃষ্টি হয়নি। উপরন্তু মুসলিম লীগের মধ্যে সামন্ত প্রভুদের একচ্ছত্র আধিপত্য, এবং রাজনৈতিক প্রক্রিয়া একটা প্রাতিষ্ঠানিক রূপ নিতে ব্যর্থ হবার ফলে ক্রমে রাষ্ট্রযন্ত্রে সামরিক ও বেসামরিক আমলাতন্ত্রের নিযন্ত্রণই সুদৃঢ় হয়। পাকিস্তানের ক্ষমতা তাদের হাতেই কেন্দ্রীভ’ত হয়। আবুল মনসুর আহমদের আমার দেখা রাজনীতির পঞ্চাশ বছর এবং সদ্য প্রকাশিত শেখ মুজিবুর রহমানের অসমাপ্ত আত্মজীবনী ঐ সময়ের প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতার দলিল।

এই অবস্থা থেকে পাকিস্তান আর কখনোই মুক্তি পায়নি। এখনও নয়।।

(চলবে…)

2 টি মন্তব্য

  1. pakistan never like Banglsdeshi and never forget 1971,pakistani allways jealous about us, thay are treat us 2nd class muslim,
     but we know pakistani’s are foolish and frist class stupid, nonsense nation,sorry about pakistan.(member of MUKTIBAHANE).Germany.

  2. Pakistani’s never walks Jinna’s foot steps. their fanatic muslim sunne leader mislead that blind nation,pakistan never become a good nation. Germany.