Home » Author Archives: আমাদের বুধবার (page 30)

Author Archives: আমাদের বুধবার

চীন :: পরাশক্তির বিবর্তন (পর্ব – ২৪)

দুর্ভিক্ষ : প্রচারণা ও পর্যালোচনা

আনু মুহাম্মদ

Last 3গত পর্বেই বলেছি উল্লম্ফনের সময় জটিলতা হয়েছিলো, ব্যবস্থাপনার সমস্যা ছিলো, কিছু এলাকায় খাদ্য ঘাটতি হয়ে দুর্ভিক্ষ পরিস্থিতিও সৃষ্টি হয়েছিলো। পাশাপাশি প্রাকৃতিক দুর্যোগও ছিলো। মাও সেতুং নিজেও এই সময়ে ত্রুটিবিচ্যুতির কথা স্বীকার করেছেন। কিন্তু দুর্ভিক্ষ নিয়ে ফুলিয়ে ফাঁপিয়ে মনগড়া পরিসংখ্যান দিয়ে যেভাবে প্রচার চালানো হয় তাতে প্রকৃত চিত্র পাওয়া যায় না। এসব প্রচারণা অনেক সময় এই পর্যন্ত যায় যে, মাও সেতুং নিজেই এসব হত্যাকাণ্ডের পেছনে ছিলেন! তিনি চেয়েছিলেন এভাবে মানুষ মরুক, তাহলে উন্নয়নের সুবিধা হবে!!

মাও সেতুংএর বিরুদ্ধে বিশ্বজুড়ে সমালোচনা ও কুৎসার বড় ক্ষেত্র দুটি। এর মধ্যে একটি হলো Great Leap Forward বা উল্লম্ফন এবং আরেকটি হলো সাংস্কৃতিক বিপ্লব। বিস্তারিত »

ফুলবাড়ী দিবস :: দেশীয় সম্পদ রক্ষা

আমাদের বুধবার প্রতিবেদন

Last 4২৬ আগষ্ট ফুলবাড়ী গণঅভ্যুত্থানের নবম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। ২০০৬ সালের এইদিনে পানিসম্পদ, আবাদী জমি ও মানুষ বিনাশী ফুলবাড়ী কয়লা প্রকল্পের বিরুদ্ধে বাঙালি আদিবাসী নারী পুরুষ শিশু বৃদ্ধসহ সকল মানুষের ধারাবাহিক প্রতিবাদ বিশাল আকার নিয়েছিলো। এই প্রকল্প অনুযায়ী ফুলবাড়ী সহ ছয় থানায় হাজার হাজার মানুষ উচ্ছেদ করে, আবাদী জমি, ভূগর্ভস্থ ও নদীনালার পানি বিনাশ করে উন্মুক্ত পদ্ধতিতে কয়লা উত্তোলনের আয়োজন করেছিলো অনভিজ্ঞ কোম্পানি এশিয়া এনার্জি। প্রকল্পের শর্ত অনুযায়ী মাত্র ৬ শতাংশ রয়্যালটির বিনিময়ে কোম্পানি পুরো খনির মালিকানা তারা পেয়ে যেতো এবং শতকরা ৮০ ভাগ বিদেশে রফতানির মাধ্যমে নিজেরা বিপুল মুনাফা লাভ করতো। বিস্তারিত »

তেলের অর্থ এবং আন্তর্জাতিক অস্ত্র ব্যবসার নেপথ্যে (চতুর্দশ পর্ব)

কমিশনের অর্থের কৃষ্ণগহ্বর

অস্ত্র ব্যবসার সাথে তেল সম্পদের অর্থের একটি গভীর সখ্যতা রয়েছে। একটি অপরটিকে টিকিয়ে রাখে। আর পরস্পরের ঘনিষ্ঠ দুই ব্যবসার কুশীলবরা। এই ব্যবসার নেপথ্যে রয়েছে ঘুষ, অর্থ কেলেঙ্কারিসহ নানা ভয়ঙ্কর সব ঘটনাবলী। এরই একটি খণ্ডচিত্র প্রকাশ করা হচ্ছে ধারাবাহিকভাবে। প্রভাবশালী দ্য গার্ডিয়ানএর প্রখ্যাত দুই সাংবাদিক ডেভিড লে এবং রাব ইভানসএর প্রতিবেদন প্রকাশের পরে এ নিয়ে বিস্তর আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছিল। এ সংখ্যায় ওই প্রতিবেদনের বাংলা অনুবাদের (চতুর্দশ পর্ব) প্রকাশিত হলো। অনুবাদ : জগলুল ফারুক বিস্তারিত »

তথ্যের অবাধ গতি ও গণতন্ত্র হ্যাকিং-এর গল্প

ফ্লোরা সরকার

Last 6মোটা দাগে পশ্চিমের সঙ্গে আমাদের মূল যে পার্থক্যটা ধরা পড়ে তা হলো সময়কে ধরতে পারা এবং না পারার সমার্থ এবং অসমার্থ চলমান সময়কে যতটা পারঙ্গমতার সঙ্গে পশ্চিমারা ধরতে পারে আমরা তার থেকে শুধু পিছিয়েই থাকিনা, অতীতকে ধরে আঁকড়ে থাকি। যদিও পশ্চিমের একটা প্রবণতা থাকে অতীতকে অস্বীকার করার, পরিবর্তিত করে ফেলার, বিশেষ করে সেসব অতীত যা তাদের বিব্রত করে, অস্বস্ততিতে ফেলে দেয়। তবু শিল্পকর্মে নিয়োজিত কেউ কেউ থাকেন যারা অতীতকে স্মরণ করেন, অতীতকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখেন, যাতে করে অতীতের পুনরাবৃত্তি না ঘটে সেসব থেকে সাবধান হবার জন্যে। বিস্তারিত »

বাড়ছে রিজার্ভ বাড়ছে বিপদ

আমাদের বুধবার প্রতিবেদন

Dis 5দেশে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বৃদ্ধি নিয়ে বেশ আনন্দউল্লাস হচ্ছে। কিন্তু প্রকৃত অর্থে বিনিয়োগ মন্দাসহ বেশকিছু কারণ রয়েছে এই রিজার্ভ বৃদ্ধির নেপথ্যে। গ্যাসবিদ্যুৎ সমস্যা, ব্যাংক ঋণে সুদের হার চড়া হওয়ায় বিনিয়োগ ক্রমাগত কমছে। আর বিনিয়োগ না হওয়ায় মূলধনী যন্ত্রপাতি আমদানিও কমে যাচ্ছে। এতে আমদানি খরচ কমে যাওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বাড়ছে। বিশ্লেষকরা বলছেন, বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বাড়লেও তা দেশের জন্য তেমন উপকারে আসছে না, প্রবৃদ্ধি বাড়ছে না। বৈদেশিক মুদ্রা উৎপাদনশীল খাতে ব্যবহার না হওয়ায় তা মূল্যস্ফীতিকেও অনেকাংশে উস্কে দিচ্ছে বলে তাদের অভিমত। বিস্তারিত »

জিএসপি না পাওয়ার আসল কারণ

এম. জাকির হোসেন খান

Dis 4শর্ত পূরণ করতে না পারার কারণেই যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে পণ্যের অগ্রাধিকারমূলক বাজার সুবিধা (জিএসপি) পুনর্বহাল হয়নি, শ্রমমানের উন্নয়নে আমরা যেসব অঙ্গীকার করেছি তা পূরণ করতে হবে। তাহলে যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে আমরা জিএসপি ফিরে পাব’ সম্প্রতি এ মন্তব্যটি করেছেন ক্ষমতাসীন প্রধানমন্ত্রীর পররাষ্ট্র বিষয়ক উপদেষ্টা গওহর রিজভী। তাজরীন ফ্যাশন এবং রানা প্লাজা ট্রাজেডিতে সহস্রাধিক শ্রমিকের নিহত হবার কারণে বাংলাদেশের পোষাক রপ্তানিখাতে শ্রমমান নিশ্চিত করতে যুক্তরাষ্ট্র সরকার প্রদত্ত শুল্ক মুক্ত অগ্রাধিকারমূলক সুবিধা (কোন প্রকার ভ্যাট, ট্যাক্স আরোপ না করা) যা জেনারেলাইজড সিস্টেম অব প্রেফারেন্স বা জিএসপি নামে পরিচিত, তা ২০১৩ সালের ২৭ জুন প্রত্যাহার করা হলেও সর্বশেষ ২০১৫ সালেও তা পুনর্বহাল করা হয়নি। বিস্তারিত »

ক্ষমতাসীনরা যখন বিরোধী দলের ভাষায় কথা বলে

আমাদের বুধবার প্রতিবেদন

Dis 3নানা পথ এবং পন্থায় বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড যখন চলছিল, তখন দেশে ও বিদেশে এর বিরুদ্ধে প্রবল প্রতিবাদ ওঠে এবং যা এখনো চলছে। সবারই একটি কথা আইনবিরুদ্ধ বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড চলতে পারে না। তখন ক্ষমতাসীন দল এর বিপরীতে গিয়ে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডকে সমর্থন দিয়েই যাচ্ছে এই কারণে যে, এর মাধ্যমেই বিরোধী দল, পথ, পক্ষ ও ব্যক্তিবর্গকে বিনাশ ও নিশ্চিহ্ন করা যাবে। অনেক নেতা এখনো এই পথ ও পদ্ধতিকে সমর্থন তো দিচ্ছেনই, সাথে সাথে সভাসমাবেশে বিরোধীদের প্রতি এমন হুশিয়ারি উচ্চারণও করেছেন, ‘আন্দোলনের নামে নৈরাজ্য, সহিংসতা ও নাশকতা করলে কড়া জবাব দেয়া হবে’। কড়া জবাবের প্রধানত অনুসঙ্গ ক্রসফায়ার বা কথিত বন্দুকযুদ্ধ। বিস্তারিত »