Home » Author Archives: আমাদের বুধবার (page 34)

Author Archives: আমাদের বুধবার

একটি শিশুরও মাথাপিছু ঋণের পরিমাণ ২৮ হাজার টাকা

ঋণ গ্রহণের এ প্রবণতা নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে অচিরেই ঋণ পরিশোধের সক্ষমতা হারিয়ে ঋণদায়গ্রস্ত রাষ্ট্রে পরিণত হবে বাংলাদেশ বলে মনে করছেন অর্থনীতিবিদরা

আমাদের বুধবার প্রতিবেদন

Dis 4বাংলাদেশের ঋণের বোঝা বাড়ছেই। দেশী ও বিদেশী উৎস থেকে বেশি পরিমাণে ঋণ নেওয়ায় পুরো দেশেরই ঋণগ্রস্ত হওয়ার ঝুঁকি বাড়ছে। ঋণ গ্রহণের এ প্রবণতা নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে অচিরেই ঋণ পরিশোধের সক্ষমতা হারিয়ে ঋণদায়গ্রস্ত রাষ্ট্রে পরিণত হবে বাংলাদেশ বলে মনে করছেন অর্থনীতিবিদরা। আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) এবং বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ ও বৈদেশিক ঋণ পরিশোধের সক্ষমতা নিয়ে যৌথভাবে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এ ঝুঁকির কথা বলা হয়েছে। প্রতি বছরই বাজেটের ঘাটতি অর্থায়নে বিভিন্ন রাষ্ট্র ও দেশীবিদেশী সংস্থার ওপর সরকারের নির্ভরশীলতা বাড়ছে, বাড়ছে সুদ পরিশোধে ব্যয়। বাংলাদেশের মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) প্রায় ৩৮ শতাংশ ঋণের অর্থ।

২০১৫১৬ অর্থবছরের বাজেটে মাথাপিছু বরাদ্দ পড়েছে ১৮ হাজার ৫৮৬ টাকা। অন্যদিকে, মাথাপিছু ঋণের পরিমাণ ২৮ হাজার ৫৬ টাকা। অর্থাৎ মোট বাজেটের মধ্যে মাথাপিছু বরাদ্দ পড়েছে ৬.৩০ শতাংশ। বিস্তারিত »

ওলামা লীগ এসব কি বলছে

আমাদের বুধবার প্রতিবেদন

Dis 3ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ অসাম্প্রদায়িক রাজনীতির ধারকবাহক বলে নিজেদের সব সময়ই দাবি করে। তাদের দিক থেকে এই দাবি করার প্রধান ভিত্তি হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা। আর এরও একমাত্র রক্ষক বলেও তারা মনে করে। অথচ সংবিধান সংশোধনীর মাধ্যমে ’৭২ সালের সংবিধানে পুনঃপ্রত্যাবর্তনের ঘোষণা দিয়ে দলটি রাষ্ট্রধর্মসহ এমন কিছু বিষয় সংবিধানে রেখেছে যা মুক্তিযুদ্ধের মৌল চেতনার সাথে কোনোক্রমেই সঙ্গতিপূর্ণ নয়। মুক্তিযুদ্ধের মূল বিষয়টি ছিল, ধর্মভিত্তিক একটি রাষ্ট্র কাঠামো থেকে বেরিয়ে গিয়ে সব ধর্মের, বিশ্বাসের মানুষদের নিয়ে এমন একটি রাষ্ট্র ব্যবস্থা কায়েম করা যা সব ধর্মের মানুষকে তাদের ধর্মীয় মত, আচারআচরণ প্রতিপালন এবং মুক্ত চিন্তার স্থান হিসেবেই গণ্য হবে। ১৯৭২ সালের সংবিধান প্রণেতারা সংবিধানের রাষ্ট্রীয় মূলনীতির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হিসেবে ধর্মনিরপেক্ষতা শব্দটি খুব গুরুত্বের সাথেই স্থান দিয়েছিলেন। বিস্তারিত »

বিরোধী পক্ষ দমনের ফলাফল :: জঙ্গীবাদ সন্ত্রাসবাদের উত্থান

আমীর খসরু

Dis 2জঙ্গীবাদ, সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলা প্রশ্নে বর্তমান সরকার সব সময়ই এমন দৃঢ় প্রত্যয়ে বক্তৃতা, বিবৃতি দেশেবিদেশে দিয়ে যাচ্ছে যে, যাতে মনে হতে পারে সত্যিকার অর্থেই দেশ থেকে জঙ্গীবাদ, সন্ত্রাসবাদ নির্মূল হয়ে গেছে এবং সরকার তা মোকাবেলা করতে যথেষ্ট সক্ষম। গত মাত্র কয়েকদিনে তুরস্ক এবং সৌদি আরবের রাষ্ট্র প্রধানদের কাছে প্রেরিত বার্তায় সরকারের শীর্ষ পর্যায় থেকে বলা হয় যে, জঙ্গীবাদ দমনে সরকার কোনোক্রমেই পিছপা হবেনা এবং তাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে। গত বছর দুয়েকের বেশি সময় ধরে বিরোধী দলের সরকার বিরোধী আন্দোলনের ফলে সৃষ্ট সংঘাতসহিংসতাকে ‘জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাসী’ তৎপরতা বলে দাবি করে সরকার তা দমনে কার্যকর ব্যবস্থা নিচ্ছে বলেও হুংকার দিয়েছে ও এখনো দিচ্ছে। বিস্তারিত »

সমাজ-রাষ্ট্র কি ক্রমাগত ব্যর্থতার দিকেই যাচ্ছে?

হায়দার আকবর খান রনো

Dis 1শিশু নির্যাতন ও নৃশংসভাবে হত্যার ঘটনা যেভাবে প্রতিদিনই খবরের কাগজে আসছে, তাতে মনে হয়, আমরা বোধ হয় নিজেদেরকে সভ্য জাতি বলে বিবেচনা করতে পারি না। সিলেটে রাজন হত্যার পর খুলনায় রাকিব হত্যা। আবার বরগুনায় শিশু রবিউলকে হত্যা। এখানেই থেমে নেই শিশু হত্যার খবর। বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে প্রতিদিনই শিশু নির্যাতন ও শিশু হত্যার খবর আসছে। নির্যাতনের বীভৎসতাও আমাদেরকে শিহরিত করে তোলে। লক্ষ্যণীয় যে, এই শিশুরা প্রত্যেকেই শ্রমজীবী। বালক বয়সেই তারা পরিশ্রম করে মাবাবার সংসারে অর্থ যোগান দেয়। যে সমাজে তাদের প্রতি সহানুভূতি নেই বরং আছে লাঞ্ছনা, যন্ত্রণা, এমনকি মৃত্যু সেই সমাজকে যে কোনো বিবেকবান মানুষ ঘৃণা না করে পারে না। বিস্তারিত »

বাধাবিঘ্নহীন ঘাতকেরা

শাহাদত হোসেন বাচ্চু

Coverকালজয়ী চীনা সাহিত্যিক ল্যু স্যুনের বিখ্যাত ছোট গল্প ‘ম্যাড ম্যানস ডায়েরি বা এক পাগলের ডায়েরি’ বিদগ্ধ পাঠকদের মনে দাগ কেটে থাকার কথা। গল্পের শেষে অন্যান্য সাধারন মেসেজটি ছিল ‘সেভ দ্য চিলড্রেন বা শিশুদের বাঁচাও’। স্মৃতি থেকে খানিকটা উদ্বৃত করছি, ‘ওগো, এখনও কিছু শিশু রয়েছে, তাদেরকে তোমরা বাঁচাও। নরখাদকদের হাত থেকে বাঁচতে দাও’। ল্যু স্যুন যে সময়ে এ গল্পটি লিখেছিলেন সে সময়ে চীনের রাষ্ট্রসমাজ নরখাদকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছিল এবং তথাকথিত এক পাগলের জবানীতে কালোত্তীর্ণ এই গল্পটি তিনি লিখেছিলেন। কিন্তু শিশু হন্তারক আমাদের এই রাষ্ট্রসমাজে এখন কোন সুনীতিসুবচন আর কাজে আসছে না। এক্ষেত্রে বীভৎসতার সবচেয়ে বড় রেকর্ডটি গড়েছে ক্ষমতাসীন দলের সহযোগী সংগঠন ছাত্রলীগ। বিস্তারিত »

বিচারহীনতার অপসংস্কৃতির কারণেই অপরাধীরা পার পেয়ে যাচ্ছে :: ড. মিজানুর রহমান

আমাদের বুধবার প্রতিবেদন

Protikriaব্লগার ও শিশু হত্যাসহ সামগ্রিকভাবে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির ব্যাপক অবনতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এরই প্রেক্ষাপটে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের প্রধান ড. মিজানুর রহমান এক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, আইনের শাসনের অবস্থান বড় দুর্বল এবং বিচারহীনতার অপসংস্কৃতি আমাদের দেশে চেপে বসেছে। এই কারণেই আমরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে তাদের যথাযথ ভূমিকায় দেখতে পাচ্ছি না। আর এর সুযোগেই অপরাধীরা নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডকরে বেড়াচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনী নানাভাবে প্রভাবিত হচ্ছে এবং এই প্রভাবকে দুর্নীতি হিসেবেও আখ্যায়িত করা যায়। তাদের প্রভাবিত করা হচ্ছে কখনো অর্থের, কখনো পেশাশক্তির দ্বারা এবং কখনো রাজনৈতিক শক্তির মাধ্যমে। এ কারণেই অপরাধীরা পার পেয়ে যাচ্ছে। বিস্তারিত »

ফিরে দেখা আনবিক বোমার বর্বরতা :: হিরোশিমা-নাগাসাকি

হায়দার আকবর খান রনো

Last  1আজ থেকে সত্তর বছর আগে ১৯৪৫ সালের ৬ ও ৯ আগস্ট মার্কিন প্রশাসন জাপানের হিরোশিমা ও নাগাসাকিতে এটম বোমা নিক্ষেপ করে তাৎক্ষণিকভাবে ৩ লাখ ৪০ হাজার মানুষকে হত্যা করেছিল। আনবিক তেজষ্ক্রিয়ার কারণে পরে আরও অনেকে মারা যান। পরবর্তী এক দশক ধরে একই কারণে জাপানে অনেক বিকলাঙ্গ শিশু জন্মগ্রহণ করেছিল। মানবতার বিরুদ্ধে বিশ্ব ইতিহাসে এত বড় জঘন্য অপরাধ খুব কমই আছে। ইতিহাস সচেতন যে কোন সৎ ব্যক্তি স্বীকার করবেন যে, মানব ইতিহাসে সবচেয়ে বর্বর, সবচেয়ে নৃশংস মানবতাবিরোধী অপরাধ সংঘটিত হয়েছিল তিনটি এক, শ্বেতাঙ্গ কর্তৃক আমেরিকা মহাদেশে একটি জাতিকে পুরো নিশ্চিহ্ন করে দেয়া অর্থাৎ রেড ইন্ডিয়ান হত্যা, দুই, আফ্রিকা থেকে কালো মানুষ শিকার করে দাস ব্যবসা এবং আধুনিক যুগে আমেরিকায় দাস প্রথা নতুন করে প্রবর্তন, তিন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃক এটম বোমা নিক্ষেপ। বিস্তারিত »