Home » Author Archives: আমাদের বুধবার (page 49)

Author Archives: আমাদের বুধবার

এটা কূটনীতি নয়, অস্ত্র বিক্রি

উইলিয়াম ডি হারটাং , ফরেন পলিসি

অনুবাদ: মোহাম্মদ হাসান শরীফ

last 5ক্যাম্প ডেভিডে পারস্য উপসাগরীয় দেশগুলোর প্রতিনিধিদের সাথে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার বৈঠকের তাৎপর্য ছিল একটিই : ওয়াশিংটনের আরব মিত্রদের আশ্বস্ত করা। ওবামা যা বলেছেন, তার অর্থ দাঁড়ায় : ‘ইরানের সাথে পারমাণবিক চুক্তি নিয়ে উদ্বেগে থাকবেন না। আমরা আপনাদের সাথেও আছি।’

আপনি যে আপনার বন্ধুদের পাশে আছেন, তা দেখানোর সবচেয়ে ভালো উপায় কি? তাদের কাছে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলারের উন্নত অস্ত্র বিক্রি করুন। সত্যিই, বিষয়টা অস্ত্র বিক্রিরই। সন্ত্রাস প্রতিরোধ কিংবা অর্থনৈতিক স্থবিরতা দূর করাসব রোগের আরোগ্যে ওবামা প্রশাসনের কাছে ওষুধ আছে একটাই। সেটা হলো অস্ত্র বিক্রি। এর পরিণতি : স্বাভাবিকভাবেই রক্তাক্ত। বিস্তারিত »

তেলের অর্থ এবং আন্তর্জাতিক অস্ত্র ব্যবসার নেপথ্যে (চতুর্থ পর্ব)

last 6আন্তর্জাতিক অস্ত্র ব্যবসার সাথে তেল সম্পদের অর্থের একটি গভীর সখ্যতা রয়েছে। একটি অপরটিকে টিকিয়ে রাখে। আর পরস্পরের ঘনিষ্ঠ দুই ব্যবসার কুশীলবরা। এই ব্যবসার নেপথ্যে রয়েছে ঘুষ, অর্থ কেলেঙ্কারিসহ নানা ভয়ঙ্কর সব ঘটনাবলী। এরই একটি খচিত্র প্রকাশ করা হচ্ছে ধারাবাহিকভাবে। প্রভাবশালী দ্য গার্ডিয়ানএর প্রখ্যাত দুই সাংবাদিক ডেভিড লে এবং রাব ইভানসএর প্রতিবেদন প্রকাশের পরে এ নিয়ে বিস্তর আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছিল। এ সংখ্যায় ওই প্রতিবেদনের বাংলা অনুবাদের চতুর্থ পর্ব প্রকাশিত হলো। অনুবাদ: জগলুল ফারুক বিস্তারিত »

রাষ্ট্রীয়ভাবে নিখোঁজ হওয়াদের নিয়ে প্রামাণ্যচিত্র নস্টালজিয়া ফর দ্য লাইট (প্রথম পর্ব)

ফ্লোরা সরকার

last 7অবৈধ উপায়ে আসা যে কোনো সরকার, সেটা সেনাবাহিনী কর্তৃক অথবা নির্বাচন বর্হিভূত কিংবা যেনতেন নির্বাচন বা কারচুপির নির্বাচনের মাধ্যমেই হোক যে কোনো প্রকারেই শাসনকাজে নিয়োজিত হোক না কেনো, সেই সরকার স্বৈরতান্ত্রিক হতে বাধ্য। কেননা, জনগণের রায়ে গণতান্ত্রিক উপায়ে কোনো সরকার নির্বাচিত না হলে, জনগণও তাকে প্রত্যাখ্যান করে। আর সেই প্রত্যাখ্যানের জবাব আসে স্বৈরশাসনের মধ্যে দিয়ে। যে স্বৈরশাসন চলেছে পৃথিবীর নানা দেশে বিভিন্ন সময়ে। পুরো ষাট এবং সত্তরের দশক জুড়ে লাতিন আমেরিকার বিভিন্ন দেশে চলেছে এসব স্বৈরশাসন, বিশেষত সেনা স্বৈরশাসন। ১৯৭৬ থেকে ১৯৮৩ পর্যন্ত সাত বছর ধরে জেনারেল জর্জ রাফায়েল ভাইদেলারের নেতৃত্বে চলেছে চরম নির্যাতনমূলক সামরিক শাসন। নিখোঁজ আর হত্যা করা হয়েছে হাজার হাজার মানুষ। নিকারাগুয়ায় আনাষ্টিও সামোজার অধীনে চলেছে ৪৩ বছরের পারিবারিক শাসন। ষাটের দশকে রাফায়েল ট্রজিলেলা ডোমিনিকান রিপাবলিকে ক্ষমতা আরোহনের ছয়মাসের মধ্যেই প্রতিশোধের রক্তগঙ্গায় অবগাহন করলেন। বিস্তারিত »

সামনে রমজান ॥ এখনই লাগামহীন জিনিসপত্রের দাম

সাঈদ খান

Dis 5রমজানের আগেই রাজধানীর বাজারে সব ধরনের নিত্যপণ্যের দামে উর্দ্ধগতি শুরু হয়েছে। বেড়েছে সব ধরনের মাংসের দাম। কেজিতে ৫ থেকে ১০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে সব ধরনের ডালের দামও। এদিকে দেশী পেঁয়াজের দাম কেজিতে বেড়েছে দুই থেকে তিন টাকা পর্যন্ত। তবে কমেছে ভারত থেকে আমদানী করা পেঁয়াজের দাম।

এছাড়া কিছু কিছু মৌসুমি সবজির দাম না বাড়লেও গত এক মাস আগের দামেই স্থির রয়েছে। কমেছে বারোমাসি কিছু সবজির দাম। বাজারে নতুন ওঠা কিছু সবজির দামে দেখা দিয়েছে উর্দ্ধগতি। স্থিতিশীল আছে ভোজ্যতেল, চিনি, ডিম, মাছের দাম। তবে এরই মধ্যে কেজি প্রতি রকম ভেদে চালের দাম বেড়েছে ২ থেকে পাঁচ টাকা পর্যন্ত। বিস্তারিত »

যৌন সন্ত্রাসীরা কি সবকিছুর ঊর্ধ্বে

ফরিদা আখতার

Dis 4দিনের পর দিন নারীর ওপর লাঞ্ছনার ঘটনা ঘটেই চলেছে। কখনো জনসমাগম স্থলে, কখনো রাস্তায়, মাইক্রোবাসে, বাসে, ট্রাকে। আশ্চর্য যে সব ঘটনা ঘটছে সেখানে পুলিশ কাছাকাছি আছে, আলো আছে, মানুষজন চলাফেরা করছে। পত্রিকার খবরে যদি এমন খবর একটি দুটি আসে যা নিয়ে একটু হৈ চৈ হয়, বুঝতে হবে তার দশগুন ঘটনা আরো অনেক জায়গায় ঘটছে যা আমরা জানতেও পারছি না। না জানলে তো আর কিছুই করার থাকে না। জেনেও বা কয়টি ঘটনা নিয়ে তোলপাড় হয়েছে? সম্প্রতি ঘটনাগুলো একটু বেশী মাত্রায় এবং একই ধাঁচে ঘটছে। যেমন চলন্ত গাড়ীতে ধর্ষণের ঘটনা। বাংলাদেশে ধর্ষণের ঘটনা বহু ঘটে এবং অতীতে তিন পুলিশ দ্বারা দিনাজপুরের ইয়াসমিনের ধর্ষণ ও হত্যার পর আর শোনা যায়নি। বিস্তারিত »

কি হবে এই বাজেট দিয়ে?

আমাদের বুধবার প্রতিবেদন

Dis 3৪ জুন ঘোষণা করা হবে আগামী অর্থবছরের বাজেট। অর্থের পরিমাণের দিক থেকে প্রতিবছরই রেকর্ড গড়ছে বাংলাদেশের বাজেট। আসন্ন ২০১৫১৬ অর্থবছরেও এর ব্যতিক্রম হবে না, তার ইঙ্গিত এরই মধ্যে দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী। জল্পনার শেষ নেই। ‘আসছে তিন লাখ কোটি টাকার বাজেট’ ইত্যাদি শিরোনামও হচ্ছে পত্রিকায়। কিন্তু বাজেটে দরিদ্র ও নিম্নবিত্ত পরিবারের জন্য কি থাকছে বা কৃষকশ্রমিকের কোন অধিকার রক্ষার প্রতিশ্রুতি আসছে তার কোনো খবর নেই। কিন্তু ঠিকই আছে কমছে ব্যাংকের কর হার, ধনীদের সম্পদের ওপর কর ছাড়, আসছে বিলাস বহুল গড়ি আমদানিতে কর কমছে না বাড়ছে ইত্যাদি নানা খবরাখবর বেশ ফলাও করেই। বিস্তারিত »

হারিয়ে গেছে রাজনৈতিক ভারসাম্য – কারণ অনুসন্ধান (তৃতীয় পর্ব)

হায়দার আকবর খান রনো

Dis 2১৯৯০ সালে এরশাদ সামরিক শাসনের পতনের পর শুরু হয়েছিল সংসদীয় গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার যুগ। যদিও এই গণতন্ত্র মোটেও ত্রুটিমুক্ত ছিল না। বুর্জোয়া গণতান্ত্রিক অর্থেই ব্যবস্থাটি ছিল ভঙ্গুর। যখনই যে দল পরাজিত হয়েছে, তখনই সেই দল নির্বাচনে সূক্ষ্ম অথবা স্থূল কারচুপির অভিযোগ এনেছে। আবার একেবারে কারচুপি যে হয়নি, তাও বলা যাবে না। পার্লামেন্ট কখনই স্বাভাবিকভাবে কাজ করেনি। বিএনপি ও আওয়ামী লীগ উভয় আমলেই বিরোধী পক্ষ ধারাবাহিকভাবে সংসদ বর্জন করেছে। এমনকি দলবদ্ধভাবে পার্লামেন্ট থেকে পদত্যাগেরও নজির স্থাপন করেছে বাংলাদেশ (১৯৯৫৯৬ সাল)। আওয়ামী লীগজামায়াত ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলন করে প্রতিষ্ঠিত করেছিল নির্বাচনকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের ব্যবস্থা। বুর্জোয়া গণতান্ত্রিক দৃষ্টিকোণ থেকে এটা দুর্বলতার পরিচায়ক। কিন্তু বাংলাদেশে বুর্জোয়া গণতন্ত্রের পিছিয়ে পড়া অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে এটা প্রয়োজনীয় ছিল বলেই ইতিহাস সাক্ষ্য দেবে। বিস্তারিত »