Home » Author Archives: আমাদের বুধবার (page 80)

Author Archives: আমাদের বুধবার

আ’লীগ-বিএনপি – কে হারছে কে জিতছে

হায়দার আকবর খান রনো

cover২০১৫ সালের শুরুতেই দুই রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের রাজনৈতিক লড়াই আমরা প্রত্যক্ষ করছি। এই লড়াই হচ্ছে ক্ষমতাসীন দলের সাথে ক্ষমতা বহির্ভূত এবং চরম নির্যাতনের শিকার মাঠের প্রধান বিরোধী দলের। এই লড়াই সহিংসতার রূপ নিয়েছিল, যা এখনো অব্যাহত আছে। সহিংসতা দুই পক্ষই করেছে। রাষ্ট্রের পুলিশ ও র‌্যাব যেমন করেছে, তেমনি আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করেছে পুলিশের ছত্রছায়ায় সরকারি দলের অঙ্গসংগঠন ছাত্রলীগযুবলীগের সদস্য ও দলীয় মাস্তানরা। অন্যদিকে বিরোধী দল বিএনপিও সন্ত্রাসের আশ্রয় নিয়েছে। গাড়ি ভাংচুর এবং পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ ইত্যাদি সন্ত্রাসী কাজ করেছে। তবে এবার লক্ষ্যণীয় যে, এই কাজ প্রধানত বিএনপির ক্যাডাররাই করেছে। জামায়াতকে খুব একটা দেখা যায়নি। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি নির্বাচনপূর্ব অবস্থার সাথে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ পার্থক্য। বিস্তারিত »

শ্যালা নদী দিয়ে জাহাজ চলাচল :: আবারও ঝুঁকির মধ্যে সুন্দরবন

কল্লোল মোস্তফা

last 1সরকার সুন্দরবনের শ্যালা নদী দিয়ে আবারও জাহাজ চলাচলের অনুমতি দিয়েছে। ৭ জানুয়ারি থেকে শ্যালা নদী দিয়ে জাহাজ চলাচলের অনুমোদন দেয়ার সময় সরকার বলেছে আগামী জুন মাসের মধ্যে নাকি ঘষিয়াখালী চ্যানেলের ড্রেজিং কাজ সম্পন্ন করা হবে।গত ৯ ডিসেম্বর তেল দুর্ঘটনা ঘটার পর পর সরকার শ্যালা নদী পথ বন্ধ করে সাময়িক বিকল্প হিসেবে পশুর চ্যানেল দিয়ে জাহাজ চলার কথা বলেছিল, কিন্তু যাত্রা পথ এক দেড়শ কিলোমিটার বেড়ে যাওয়া এবং কিছুটা সাগর পথ পাড়ি দিতে হওয়ার কারণে নৌযান মালিকরা ঐ বিকল্প পথে জাহাজ চালাতে অস্বীকার করে এবং নৌমন্ত্রীর নিয়ন্ত্রাণাধীন শ্রমিক সংগঠন অনির্দিষ্ট কালের নৌধর্মঘটের হুমকি প্রদান করে।এরকম একটা প্রেক্ষিতেই সরকার আবার শ্যালা নদী দিয়ে নৌযান চলচলের অনুমতি দিল। বিস্তারিত »

উত্তাল ষাটের দশক (ঊনবিংশ পর্ব)

নকশালবাড়ী আন্দোলনের প্রভাব এবং বামপন্থীদের সঙ্কট

হায়দার আকবর খান রনো

last 2ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থান হাজার হাজার বাম কমিউনিস্ট কর্মী সৃষ্টি করেছিল, যারা বিপ্লবী প্রত্যয় নিয়ে শ্রমিককৃষক আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়েছিলেন। আওয়ামী লীগের তরুণ অংশ অর্থাৎ ছাত্রলীগের বড় অংশের মধ্যে জাতীয়তাবাদী চেতনা দৃঢ়তর হয়েছিল। বহুধাবিভক্ত কমিউনিস্টদের সকল অংশই তখন বিপ্লবের স্বপ্ন দেখতেন। বামপন্থী ছাত্রদের মধ্যেও বিপ্লব টকবগ করছিল। বাম রাজনৈতিক কর্মীদের মধ্যে উচ্চতর সাংস্কৃতিক চেতনার বিকাশ ঘটেছিল।

এই বাম কর্মীরা নকশালবাড়ীর ঘটনার দ্বারা আকৃষ্ট হয়েছিলেন। বিশেষ করে চীনের কমিউনিস্ট পার্টি যখন চারু মজুমদার ও নকশালবাড়ী আন্দোলনকে সমর্থন দিয়েছিল, তখন তার প্রতি আকর্ষণ তৈরি হয়েছিল। তবে ’৬৯এর গণঅভ্যুত্থানের আগে নকশাল আন্দোলন সম্পর্কে কৌতূহল থাকলেও তা আমাদের দেশে প্রয়োগের জায়গায় যায়নি। ’৬৯এর শেষ ও ’৭০ সালেই নকশাল আন্দোলন চীনপন্থী দলগুলোকে প্রবলভাবে প্রভাবিত করলো। নকশাল আন্দোলনের বৈশিষ্টসমূহ ইতোপূর্বে উল্লেখ করা হয়েছে। তবু এখানে প্রাসঙ্গিকক্রমে সামান্য পুনরাবৃত্তি করতে হচ্ছে। বিস্তারিত »

২০১৪ :: ৫ জানুয়ারি – বিপন্ন যাত্রায় গণতন্ত্র

আমীর খসরু

dis 1শাসন ব্যবস্থায় জনগণের যৎসামান্য যে অংশীদারিত্ব থাকে প্রচলিত গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় তাও বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রটি প্রতিষ্ঠার পর থেকে বার বার বিপন্ন হয়েছে, অধিকাংশ সময়েই থেকেছে নাগালের বাইরে। প্রথম থেকেই জনমনে এই ধারণাটি প্রবেশ করিয়ে দেয়া হয় যে, শুধুমাত্র ভোটাধিকারই হচ্ছে পুরো মাত্রার গণতন্ত্র। প্রতিনিধিত্বশীল শাসন ব্যবস্থায় নির্বাচন অবশ্যই একটি বড় শর্ত তাতে কোনো সন্দেহ নেই এবং এটি গণতন্ত্রে উত্তরণের একটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যমও বটে। কিন্তু যে সব দেশে পুরিপূর্ণভাবে প্রতিনিধিত্বশীল শাসন চলে অর্থাৎ শাসন ব্যবস্থাটি গড়ে উঠে জনগণের প্রতিনিধিত্বশীলতার মাধ্যমে, সেখানে গণতন্ত্রে উত্তরণের জন্য আইনের শাসন, বাকব্যক্তি স্বাধীনতা, মৌলিক অধিকারসহ জনগণের নানাবিধ অধিকারকে নিশ্চিত করতে হয় এবং এ জন্য নিরন্তর প্রচেষ্টাটি থাকে শাসক শ্রেণীর পক্ষ থেকে। বাংলাদেশে অতো সব না হলেও নির্বাচন ব্যবস্থাটি অন্তত চালু ছিল ১৯৯০ পরবর্তী বেসামরিক শাসন আমলে। বিস্তারিত »

২০১৪ :: গুম-ভয়ের কারিগরদের হাতে জিম্মি মানুষ

শাহাদত হোসেন বাচ্চু

cover২০১৪ শেষ হচ্ছে, একটি শিশুর করুন মৃত্যু ও নিথর মৃতদেহ নিয়ে, যা রাষ্ট্রের অমানবিক চেহারা উন্মোচন করে দিয়েছে, দিচ্ছে বার বার। আমাদের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছে, শোকাতুর অসহায় পিতাকে হাজতে পুরে দিয়ে সমঝে দিচ্ছে এই রাষ্ট্রে সাধারণের কোন স্থান নেই, রাষ্ট্রটি এখন কতিপয়ের। অতল খাদে পড়া সাধারণ মানুষের সাধারন শিশুটি উদ্ধারের বদলে হয়েছে মিথ্যাচারের শিকার, উদ্ধার অভিযান হয়েছে পরিত্যক্ত, ঠিক তখনই সাধারনরাই উদ্ধার করেছে শিশুটিকে। দীর্ঘ ২৩ ঘন্টা সরকার পারেনি শিশুটিকে জীবিত বা মৃত উদ্ধার করতে, ২৩ মিনিটে তা করেছে কয়েকজন অতি সাধারণ অদম্য মানুষ। বিস্তারিত »

গণপ্রত্যাশা হনন এবং অধিকার হারানোর বছর

আবীর হাসান

Bangladesh : Voters cast ballots in 10th general electionসারা বছর ধরে একটা প্রত্যাশার পরিণতি বা বাস্তবায়ন দেখতে চেয়েছে এদেশের মানুষ। আশা করেছে একটা অনিয়ম, অন্যায্যকে শুধরে নিয়ে নৈতিক একটা অবস্থানে ফিরুক বাংলাদেশের রাজনীতি বাচুক গণতন্ত্র। বলতে গেলে একটা গণপ্রত্যাশাই ছিল এদেশের মানুষের নতুন একটা নির্বাচনের জন্য। আর ৫ জানুয়ারির নির্বাচন যে সবার অংশগ্রহণে হয়নি, সবাই ভোট দিতে পারেনি তা ক্ষমতাসীন থেকে শুরু করে সবাই স্বীকার করেছেন প্রথমাবস্থায়। যারা নির্বাচনের দিনতারিখ ঠিক করে করিয়েছেন, তারা সাংবিধানিক নিয়ম রক্ষার দোহাই দিয়েই ব্যাপারটা ঘটিয়েছিলেন। ৫ জানুয়ারি নির্বাচনের আগে যেমন বলেছিলেন, পরেও তেমনি বলেছিলেন সবার অংশগ্রহণে একটা নির্বাচনের কথা। বিস্তারিত »

মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে ভারতীয় চলচ্চিত্রের বিকৃত বয়ান (শেষ পর্ব)

ফ্লোরা সরকার

last 7সাধারণত যার মাথা তারই ব্যাথা হবার কথা, কিন্তু বলিউডের ইয়াশ রাজ ফিল্মস এর ব্যানারে নির্মিত ও আলী আব্বাস জাফরের চিত্রনাট্য ও পরিচালিত ছবি ‘গুন্ডে’র ক্ষেত্রে ঠিক উল্টো ঘটনা ঘটতে দেখা গেলো। ছবিটি নির্মিত হলো ভারতে আর তার প্রতিক্রিয়া ঘটলো বাংলাদেশে। ইতিহাস যখন শুধুমাত্র মিথ্যে দিয়ে নয়, বিকৃত করে চিত্রিত বা রচিত হয় তখনই এমন ঘটনা ঘটে থাকে। ভারতের নির্মিত এই ছবি তাই বাংলাদেশের মাথা ব্যাথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। সব থেকে যা গুরুত্বপূর্ণ তা হলো ছবির যেভাবে সমাপ্তি টানা হয়েছে তা শুরুর থেকেও যেনো আরো প্রশ্নবোধকে রূপান্তরিত হয়েছে। সেখানে যাবার আগে আমরা ছবির শুরু থেকেই আলোচনায় যেতে পারি।

ছবিটি শুরু হয় ভয়েসওভার বা ধারাভাষ্যের মাধ্যমে, ছবির পর্দায় ভেসে ওঠে – ’১৬ ডিসেম্বর, ১৯৭১’, ধারাভাষ্যের পাশাপাশি আমরা কাহিনী দেখতে থাকি। বিস্তারিত »