Home » Author Archives: আমাদের বুধবার (page 90)

Author Archives: আমাদের বুধবার

উত্তাল ষাটের দশক (চতুর্দশ পর্ব)

ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থান :: মওলানা ভাসানীর আন্দোলন ও শেখ মুজিবের মুক্তি

হায়দার আকবর খান রনো

last 5ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ ১১ দফা প্রণয়ন করেই ব্যাপক প্রচারে নেমেছিল এবং বিপুল সাড়া পেয়েছিল। ১৭ জানুয়ারি ১৯৬৯ বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গনে ছাত্র সভা থেকে এই প্রচারাভিযান শুরু হয়েছিল। তখন রাস্তায় ১৪৪ ধারা জারি ছিল। ১৮ জানুয়ারি ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে মিছিল বের হলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে এবং কাদুনে গ্যাস নিক্ষেপ করে। ১৯ জানুয়ারি আবারও মিছিল বেরিয়েছিল। সেদিন পুলিশ গুলি করেছিল। আসাদুল হক নামে একজন (পরবর্তীতে শহীদ আসাদুজ্জামান নন) গুলিবিদ্ধ হন। পরদিন ২০ জানুয়ারি আবারও ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে মিছিল বের হলে চারখানপুলের মোড়ে অবস্থিত একটি পুলিশজিপ থেকে মিছিলকে লক্ষ্য করে জনৈক পুলিশ অফিসার গুলি ছোড়ে। মিছিলের সামনের কাতারে ছিলেন আসাদুজ্জামান (আসাদ)। তিনি সাথে সাথেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন। বিস্তারিত »

বিশ্বব্যাপী চলমান যুদ্ধের ছবি – দ্য ফোর্থ ওয়ার্ল্ড ওয়ার

ফ্লোরা সরকার

last 6১৯৯৪ সালের ১ জানুয়ারি, ঠিক যেদিন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা এবং মেক্সিকো মিলে নাফটা অর্থাৎ নর্থ আমেরিকান ফ্রি ট্রেড অ্যাগ্রিমেন্ট করলো, ঠিক তার কয়েক ঘন্টা পরেই মেক্সিকোর চিয়াপাসে কিছু সেনা কৃষক জেগে উঠেছিলো। গড়ে তুলেছিলো, জাপাটিসটার আর্মি অফ ন্যাশনাল লিবারেশান, সংক্ষেপে জাপাটিসটাস বামপন্থী রাজনৈতিক ও মিলিটারি বৈপ্লবিক দল। ১৯৯৪ সাল থেকেই এই দল মেক্সিকোর বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে আসছে, যে যুদ্ধ ছিলো মূলত আত্মরক্ষামূলক। মেক্সিকোর সর্ব দক্ষিণে অবস্থিত চিয়াপাস অঞ্চলে মিলিটারি, সংসদীয় এবং কর্পোরেট ব্যবস্থার বিরুদ্ধে এই যুদ্ধ ছিলো মূলত আত্মরক্ষামূলক যুদ্ধ। যাদের অবিসংবাদী নেতা ছিলেন সাবকমান্ডেন্ট মারকস (১৯ জুন, ১৯৫৭)। যাকে নব্য চে গুয়েভারা হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়। মিলিটারি, সংসদীয় বা কর্পোরেট ব্যবস্থার মাধ্যমে অর্পিত যেকোনো জোরপূর্বক সমাধান চাপিয়ে দেয়ার নীতি বিরুদ্ধ ছিলো এই দল। একটা গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা দাবী আদায়ের চেষ্টা করে আসছে দলটি। তাদের যুদ্ধ অতীতের গেরিলা যুদ্ধের মতো না। বিস্তারিত »

সৃজনশীল শিক্ষা উচ্ছেদে সৃজনশীল কৌশল

ফারুক আহমেদ

dis 5বাংলাদেশে যতগুলো শিক্ষানীতি প্রণীত হয়েছে তার মধ্যে সবচেয়ে বেশি বাগাড়ম্বর এবং সবচেয়ে বেশি ঢাকঢোল পেটানো হয়েছে ২০০৯ সালে ক্ষমতাসীন মহাজোটের নামে আওয়ামী লীগের শিক্ষানীতি প্রণয়নে। এ শিক্ষানীতির ঢাকঢোলের আওয়াজ যত বেশি তার চেয়েও অনেক বেশি কঠিন এর সৃজনশীল মোড়ক। এ মোড়কের নির্মাণ কৌশল সৃজনশীলতায় এমনই সুদৃঢ় তা যে কোনো কৌশলকেও হার মানায়। এ কৌশলে বাংলাদেশের বহু জ্ঞানীগুণী এমনভাবে ধরাশায়ী হলেন যে, শিক্ষানীতির কৌশলী প্রশ্নে ধরাশায়ী জ্ঞানীগুণীগণ এখনও সম্বিৎ ফিরে পেয়ে ধরা থেকে উঠতেই পারলেন না। গুণীদের মাথা ঘোলা করা সেই প্রশ্ন হলোআপনি কি সৃজনশীলের পক্ষে নন? বিস্তারিত »

দুদক দেশে নীরব বিদেশে সরব

এম. জাকির হোসেন খান

dis 4সবাই মিলে শপথ করি, দুর্নীতিবাজদের ঘৃণা করি। রুখবো দুর্নীতি, গড়ব দেশ, হবে সোনার বাংলাদেশ, এরকম একটি ক্ষুদেবার্তা দুদক গত ২৩ নভেম্বর তারিখে সকল মোবাইল গ্রাহককে পাঠিয়েছে। প্রশ্ন হলো, দুদকের এ বার্তা কাদের উদ্দেশ্যে? এদেশের সাধারণ জনগন কি দুর্নীতির সাথে জড়িত বা তারা দুর্নীতিবাজদের বিচার চায় না? সাধারণ নাগরিকরা কি বিদেশে অর্থ পাঁচারের সাথে জড়িত? এ পর্যন্ত যে রাজনীতিবিদ, ব্যবসায়ী ও সরকারি কর্মকর্তার অবৈধভাবে বিদেশে পাঁচারকৃত অর্থ দেশে ফেরত আনার ব্যাপারে বিদেশি সরকারগুলোর সহায়তা চেয়ে দুদক মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রিয়া, সিঙ্গাপুর, হংকং ও থাইল্যান্ড সহ মোট ১৪টি দেশের সরকারের কাছে Mutual Legal Assistance Request (MLAR)এর ৩৪টি চিঠি পাঠিয়েছে তারা কি এ নীতিকথা সম্পর্কে অবহিত নয়? বিস্তারিত »

ওভার স্মার্ট শাসকের গণবিরোধী চরিত্র

আবীর হাসান

dis 3রাজ্য শাসন না রাষ্ট্র পরিচালনা কোনটা করছে আওয়ামী লীগ সরকার? এই প্রশ্নটির উত্তর পাওয়া খুব জরুরি এ কারণে যে, সাম্প্রতিককালে অভাবনীয় কিছু ঘটনা ঘটিয়ে চলেছে সরকার এবং ক্ষমতাসীন দল যেগুলো কোনো গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে সরকার হুট করে বারে বারে করতে পারে না। একদিকে চলছে সশস্ত্র সংঘাত, লুটপাট, দুর্নীতি আর অন্যদিকে আমরা করে দিয়েছি, আমরা করে দেবো এই ধরনের কথা এমনভাবে বলা হচ্ছে যেন দেশের সব অর্থের ও সব সম্পদের মালিক বনে গেছে দলটি। রাজ্য শাসনের মতো মালিকানার দাবি নিয়ে জনসাধারণের সব রকম সুযোগ আর অধিকার খর্ব করার কাজ নীরবে এবং প্রকাশ্যে করে যাচ্ছে সরকার। সংসদীয় আসনের উপনির্বাচনে পর্যন্ত ভোটারদের ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ দেয়া হচ্ছে না। বিস্তারিত »

তারেক বন্দনা না আন্দোলন?

আমীর খসরু

dis 2সরকারবিরোধী আন্দোলন শুরুর হুমকি বারংবার দিতে দিতে ক্লান্ত বিএনপি। এছাড়া তাদের দেয়া আলটিমেটামে মানুষ বিশ্বাস হারিয়েছে আগেই, এখন বিশ্বাস তাদেরও নেই বলেই মনে হচ্ছে। কোরবানীর ঈদের পরে আন্দোলন শুরু করা হবে বলে ঘোষণা দিলেও শেষ পর্যন্ত আন্দোলনের মাঠে নামা তো দূরে থাক, দল গুছিয়েই উঠতে পারেননি বেগম খালেদা জিয়া। তিনি আন্দোলনের সাথীহীনতায় ভুগছেন এ কথা তার বক্তব্যেই স্পষ্ট। মাত্র কয়েকদিন আগে দলের সিনিয়র নেতাদের বৈঠকেই তাদের নিষ্ক্রিয়তায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন বেগম জিয়া। তিনি তাই বলে দিয়েছেন আপনারা আন্দোলনে না নামলে আমি একাই আন্দোলনে নামবো। বিএনপির যে এখন একেবারেই অগোছালো অবস্থা তা এই বক্তব্যের মধ্যদিয়েও স্পষ্ট। বিস্তারিত »

রাজনীতির গুমোট হাওয়া

পীর হাবিবুর রহমান

dis 1রাজনৈতিক অনিশ্চয়তার ঘুর্নিপাকে গুমোট হাওয়া বইছে। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা আবহাওয়ার পূর্বাভাস আজকাল এমনকরেই দিচ্ছেন। সরকার চলছে বিরতিহীন ট্রেনের মতো। সংসদ চলছে অকার্যকর ঘরজামাই বিরোধীদল নিয়ে। দেশের একবড় জনগোষ্টির প্রতিনিধিত্বশীল রাজনৈতিকদল বিএনপির শীর্ষ পর্যায় থেকে তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত নেতাকর্মীদের মামলার জালে ফেলে দমননীতির পথেই হাটছে সরকার। বিএনপি জামায়াত জমানায় খালেদা জিয়ার পথের সাথীরা অনেকেই দুর্নীতির মহামারীতে আক্রান্ত হয়ে সরকারের কাছে এতটাই বাধা পড়েছেন যে, আন্দোলনের আল্টিমেটাম দিলেও তা কথার তুব্রিতেই পড়ে আছে। জাতিসংঘসহ পশ্চিমাগণতান্ত্রিক দুনিয়া দুই রাজনৈতিক পরাশক্তি আওয়ামী লীগ বিএনপির মধ্যে সংলাপের তাগিদ বারবার দিয়ে আসলেও তার আলোর মুখ দেখছে না। বিস্তারিত »