Home » প্রচ্ছদ কথা (page 20)

প্রচ্ছদ কথা

জঙ্গীবাদ দমন :: ফ্রান্সে জজ মিয়া নাই

আমীর খসরু

Coverসোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের পর পশ্চিমা দেশগুলো এবং এর সমর্থকদের পক্ষ থেকে এমন ধারণা পোষণ করা হয়েছিল যে, বিশ্বে তাদের আর কোনো শত্রু নেই। প্রতিপক্ষ বধ করার উল্লাসে তারা ছিল বিভোর। সোভিয়েত ইউনিয়নের পতন এবং পূর্ব ইউরোপের দেশগুলো থেকে ওইসব দেশের মনমতো গড়া শাসন ব্যবস্থা অর্থাৎ সমাজতন্ত্রের নামে কর্তৃত্ববাদী শাসন বিদায় নিয়ে বিশ্বব্যবস্থা এককেন্দ্রিক হয়ে পড়েছে এমন ধারণাও পোষণ করা হয়। সোভিয়েত ইউনিয়ন এবং এর বলয়ভুক্ত দেশগুলো বিদ্যমান থাকার সময় বিশ্ব ব্যবস্থা ছিল দুই মেরুতে বিভক্ত। কিন্তু বিশ্ব ব্যবস্থা হয়ে পড়ে এককেন্দ্রিক। তখন অনেক অতিউৎসাহী এমন প্রচারপ্রচারণা শুরু করে যে, পৃথিবীতে এখন উদার গণতন্ত্রের তরঙ্গ বইয়ে দিতে হবে। এরই এক পর্যায়ে ১৯৯২ সালে ফ্রান্সিস ফুকাইয়ামা দ্য এন্ড অফ হিস্টরী এন্ড দ্য লাস্ট ম্যান নামে ৪১৮ পাতার একটি পুস্তক প্রকাশ করেন। বিস্তারিত »

গণতন্ত্রই জঙ্গীবাদ প্রতিরোধের গ্যারান্টি

আমীর খসরু

Coverদুনিয়ার বড় বড় সংবাদ মাধ্যমে বাংলাদেশের খবরাখবর যখন ছাপা হয়, তার মধ্যে ইতিবাচক বা পজিটিভ খবরাখবরের সংখ্যা নিতান্তই নগন্য। বাংলাদেশ অধিকাংশ সময়ে খবর হয় দৈব্যদুর্বিপাক, কোনো বিপর্যয় বা খারাপ খবরের জন্য। আগে ঝড়জলোচ্ছ্বাস, বন্যাসহ এ জাতীয় বিপর্যয়ের খবরই ছাপা হতো, তবে গেল কিছুদিন ধরে এর সাথে যুক্ত হয়ে যে খবরাখবর এবং বিশ্লেষণ প্রকাশিত হচ্ছে বাংলাদেশের ব্যাপারে তা জঙ্গীবাদের উত্থান সম্পর্কিত বিষয়াবলী নিয়ে। এ নিয়ে প্রবাসী বাংলাদেশীরা কতোটা অস্বস্তিতে আছেন, তা সহজেই আন্দাজ করা যায়। আর ভাবমূর্তিগত সঙ্কটেরই বা কি হাল হয়েছে তাও বোধ করি বোঝা যাচ্ছে। বাংলাদেশে আইএস বা আল কায়েদার ভারতীয় শাখার অস্তিত্ব আছে কি নেই এ প্রশ্নটিই হরহামেশা উঠছে। বিস্তারিত »

আমরা অবশ্যই বিচার চাই

আমীর খসরু

Coverসরকার এই কথা স্বীকার করবে না জানি, কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে এই যে, দেশে এক ভয়ংকরভীতিকর পরিস্থিতি চলছে। মানুষ আতঙ্কিত, শঙ্কিত এবং এ কারণেই বিপর্যস্ত, বিপন্ন, অসহায় ও বিষন্ন। দু’জন বিদেশী হত্যাকাণ্ড এবং শিয়া সম্প্রদায়ের ধর্মীয় অনুষ্ঠানের উপরে গ্রেনেড হামলার পরে প্রধানমন্ত্রী সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন দুটো বোমা এবং পাচটি ডিম মেরে দেশের অগ্রযাত্রাকে ব্যাহত করা যাবে না। এর আগে এ বছরই পর পর চারজন ব্লগারকে হত্যার পরে প্রতিটি ঘটনার শেষেই সরকারের পক্ষ থেকে এমন কথা এবং ধারণা দেয়া হচ্ছিল যে, এসব ঘটনাগুলো বিরোধী দল সৃষ্ট ষড়যন্ত্রের কারণে নিছক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির বিচ্ছিন্ন ঘটনা। বিস্তারিত »

বাংলাদেশের ভয়দশা, ভয় বাণিজ্য ও ষড়যন্ত্র তত্ত্ব

শাহাদত হোসেন বাচ্চু

Coverবাংলাদেশের জন্মের পরে কিংবা জন্মের আগে অথবা সেই ব্রিটিশ শাসনকালে ‘ষড়যন্ত্র’ এবং ‘ষড়যন্ত্র তত্ত্ব’ স্বৈরশাসন ও দমন পীড়নের সবচেয়ে বড় হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। পাকিস্তান আমলে জনগণের যে কোন ন্যায্য আন্দোলনসংগ্রামের ক্ষেত্রে পাক শাসকগোষ্ঠি ভারতের সাথে ষড়যন্ত্রের একটি আগাম গন্ধ পেত এবং যে কাউকে, যেমন খুশি ভারতের চর বানিয়ে ফেলা হতো। বাংলাদেশ জন্মের পরে এই প্রবণতা অব্যাহত থেকেছে এবং এখনও যে কাউকে ভারত বা পাকিস্তানের অনুচর বানিয়ে দেয়া হয়। সন্দেহ নেই, দীর্ঘ দু’দশকেরও বেশি চলমান বাঙালীর মুক্তিসংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের সরাসরি বিরোধিতাকারীরা যে মানসিকতায় এটি করেছে, পরবর্তীকালে ক্ষমতায় আসীন দলগুলো বিরোধীপক্ষকে সেভাবেই চিহ্নিত করার প্রয়াস পেয়েছে। বিস্তারিত »

গণতন্ত্রবিনাশী মৌলিক গণতন্ত্রের একালের সংস্করণ

আমীর খসরু

Coverদেশে এখন থেকে স্থানীয় সরকার নির্বাচনগুলো দলীয় ভিত্তিতে, দলের প্রতীক নিয়ে অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। উন্নয়নকে বিকেন্দ্রীকরণের মাধ্যমে তা নিশ্চিত করার পাশাপাশি ওই উন্নয়ন কার্যক্রমে যেন জনঅংশীদারিত্বের ব্যবস্থাটি থাকে তার গ্যারান্টি দেয়ার লক্ষ্যেই স্থানীয় সরকারকে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পর্যায় বলে গণ্য করা হয়। এ কথাটি প্রমাণিত সত্য যে, উন্নয়ন কার্যক্রমে যদি জনগণের সরাসরি অংশগ্রহণ ও অংশীদারিত্বের ব্যবস্থা না থাকে এবং সামগ্রিক ব্যবস্থায় জনগণের ইচ্ছাঅনিচ্ছার প্রতিফলন না ঘটে, তাহলে ওই পুরো উন্নয়নটিই হবে নষ্টভ্রষ্ট অথবা উন্নয়ন নামের কর্মকাণ্ডগুলো থেকে যাবে খাতাকলমে। বিস্তারিত »

জজ মিয়ার পুনরুত্থান

আমীর খসরু

Coverওয়াশিংটনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন প্রেরিত একটি প্রতিবাদ ছাপা হয়েছে প্রভাবশালী দ্য নিউইয়র্ক টাইমসএ ৯ অক্টোবর। গত ৫ ও ৭ অক্টোবর বাংলাদেশের চলতি পরিস্থিতি সম্পর্কে প্রতিবেদন, যেখানে মৌলবাদজঙ্গীবাদের প্রসঙ্গ ছিল, তার প্রতিবাদ জানাতেই রাষ্ট্রদূত ওই প্রতিবাদ পাঠিয়েছিলেন। প্রতিবাদপত্রে জিয়াউদ্দিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নেতৃত্বের প্রশংসা করেছেন জঙ্গীবাদ উত্থান দমনে। সাথে সাথে তিনি একটি তথ্যও দিয়েছেন। এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে ২০১৩ সালে জঙ্গীবাদ সংশ্লিষ্ট মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ৪শ ৪জন, যা বর্তমান বছরে এসে দাড়িয়েছে ৩৭ জনে। বিস্তারিত »

এখন প্রতিপক্ষ ঘায়েলের সময় নয় :: প্রয়োজন জাতীয় ঐক্যের

আমীর খসরু

Coverএ বছরই আন্তর্জাতিকভাবে স্পর্শকাতর কিছু ঘটনা ঘটেছে বাংলাদেশে। ৪ জন ব্লগারকে হত্যা করার ঘটনা এবং এই হত্যাকাণ্ডগুলোর দায় জঙ্গী সংগঠনগুলোর স্বীকারের বিষয়টি দুনিয়াজুড়ে তোলপাড়ের সৃষ্টি করেছে। বছরের শেষ প্রান্তে এসে ঘটেছে দু’জন বিদেশী হত্যাকাণ্ডের ঘটনা এবং এর দায় এবার সরাসরি স্বীকার করেছে ইসলামিক স্টেট বা আইএস। ব্লগার হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় যে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছিল তার রেষ কাটতে না কাটতেই, দুই বিদেশী নাগরিক হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ওই তোলপাড়কে আরও ব্যাপকতর করে তুলেছে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে। ব্লগার হত্যার সাথে সাথে আইএসএ যোগদানে ইচ্ছুক বলে কথিত বাংলাদেশী বা বাংলাদেশী বংশোদ্ভূতদের বিষয়টিও সামগ্রিক পরিস্থিতিকে ঘোলাটে করে তুলেছিল। বিস্তারিত »