Home » প্রচ্ছদ কথা (page 38)

প্রচ্ছদ কথা

চিন্তা নিষিদ্ধ, কণ্ঠ নিষিদ্ধ, রাজপথ নিষিদ্ধ….

আমীর খসরু

police fireরাজনৈতিক সমঝোতায় সরকারের অনীহার কারণে দেশে যখন সংঘাতসহিংসতার পরিস্থিতি চরমে, জনমনে অনিশ্চয়তা আর শঙ্কার মাত্রা যখন সর্বোচ্চ সীমা অতিক্রম করেছে, তখন দেশের সর্বস্তরের মানুষ তো অবশ্যই, দেশবিদেশের নানা পর্যায় থেকে বলা হচ্ছে নির্বাচনকেন্দ্রীক বিরোধ নিষ্পত্তি হলে সঙ্কটের সমাধান হবে। সবাই বলছেন, আগামী নির্বাচনকে কেন্দ্র করে যে জটিলতার সৃষ্টি করা হয়েছে, তা নিষ্পত্তি করা গেলে, পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসেবে যে সব উপসর্গ দেখা দিয়েছে এবং সঙ্কটকে আরো ঘনীভূত করছে, তা দূরীভূত হবে। বিস্তারিত »

সরকারের নিত্যনতুন বিপজ্জনক ইস্যু সৃষ্টি

আমীর খসরু

police-4রাজনীতির চরম সংঘাত এবং সাংঘর্ষিক পরিস্থিতিতে জনমনে যখন সীমাহীন আতঙ্ক আর শঙ্কা বিরাজ করছে, ঠিক তখনই এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে আরেকটি নতুন উপসর্গ। রাজনীতিতে ধর্মের ব্যবহারের বিষয়টি পাকাপোক্ত করার ব্যবস্থা হয়ে গেল সরকারের কূটকৌশল এবং অপরাজনীতির কারণে। ৬ এপ্রিল এ কারণে দেশ ও জনগণের জন্য স্বল্প এবং দীর্ঘমেয়াদের প্রতিক্রিয়া সৃষ্টিকারী একটি দিন হিসেবেই চিহিৃত হয়ে থাকবে। আপাতঃ এই ঘটনার ভয়াবহ প্রতিক্রিয়া তেমন একটা টের পাওয়া না গেলেও এটা বুঝতে খুব বেশিদিন অপেক্ষা করতে হবে এমন নয়। ক্ষমতাকে দীর্ঘস্থায়ী করার মনোবাসনায় আগামী নির্বাচনকে কিভাবে নিজেদের পক্ষে নেয়া যাবে তার জন্য ক্ষমতাসীনরা দীর্ঘদিন ধরে একের পর এক কৌশল গ্রহণ করছে, সৃষ্টি করছে নিত্যনতুন ইস্যু। বিস্তারিত »

সরকারই সংঘাত চায় – সমঝোতা প্রয়োজন রাষ্ট্রপতি পদ নিয়েও

আমীর খসরু

politics-1-বৃটিশ রাষ্ট্রবিজ্ঞানী এডমন্ড বার্ক ১৭৮৯ সালের ৫ মে সে দেশের পার্লামেন্টে দাঁড়িয়ে বলেছিলেন, ‘এমন এক ঘটনা ঘটে গেছে, যা নিয়ে কথা বলা খুবই মুশকিল এবং চুপচাপ থাকাও একেবারে অসম্ভব।’ তার এই বক্তব্য এখনো সমান ভাবে প্রাসঙ্গিক। এতো বছর আগে এডমন্ড বার্কের এই বক্তব্য প্রাসঙ্গিক বাংলাদেশের বর্তমান প্রেক্ষাপট, হানাহানি, রক্তপাত এবং দেশ ক্রমাগত সাংঘর্ষিক পরিস্থিতির দিকে চলে যেতে থাকার কারণে। কথা বলা মুশকিল কেন, তা সবারই জানা। আর চুপচাপ থাকাযেকোনো কাণ্ডজ্ঞানসম্পন্ন উদ্বিগ্ন, আতঙ্কিত দেশবাসীর পক্ষে অসম্ভব। বিস্তারিত »

দেশ এখন অঘোষিত এক যুদ্ধক্ষেত্র

শাহাদত হোসেন বাচ্চু

bd-situation-1-এবারের এই বসন্তে, এখন বাংলাদেশে প্রতিদিন মানুষ মারা যাচ্ছে। মানুষের রক্ত লাল করে দিচ্ছে রাজপথ, মাঠ, প্রান্তর, শস্য ভূমিএমনকি গৃহাভ্যন্তরও। আক্রান্ত হচ্ছে, বাস, রিক্সা, গাড়ী, ট্যাক্সি, দোকানপাট, ব্যাংকবীমা, থানাআদালত মায় ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান পর্যন্ত। জ্বালিয়ে পুড়িয়ে ছারখার করে দেয়া হচ্ছে। অকাতরে খুন হয়ে যাচ্ছে বৃদ্ধ, তরুণ, যুবা, শিশুকিশোরনারী। কারো জীবনের এতোটুকু নিরাপত্তা নেই। কার্যতঃ গোটা বাংলাদেশ এখন অঘোষিত যুদ্ধক্ষেত্রে পরিনত হয়েছে। বিস্তারিত »

দেশ কি রুয়ান্ডা বা পাকিস্তানের পথে?

আমীর খসরু

democracy-1-পূর্ব আফ্রিকার ভূবেষ্টিত দেশ রুয়ান্ডা। দীর্ঘকাল ধরে দেশটির প্রধান দুই জাতিসত্ত্বা হুতু ও তুতসিদের মধ্যে সংঘাত আর সাংঘর্ষিক পরিস্থিতি চলছিল। ১৯৫০এর দশকে শুরু হওয়া ভয়াবহ সংঘাত এবং দাঙ্গা দীর্ঘকাল ধরে চলতে থাকে। বাড়তে থাকে মৃতের সংখ্যা। শুধু ১৯৬৩ সালেই নিহত হন ১৪ হাজারের বেশি মানুষ। এই পরিস্থিতি চলছিল দীর্ঘকাল। আর এতে মদদ ছিল দেশটির ক্ষমতাসীন শাসকশ্রেণী এবং ক্ষমতাশ্রয়ীদের। বিপুল খনিজ ও প্রাকৃতিক সম্পদে সম্পৃদ্ধ রুয়ান্ডার এই সংঘাতের পেছনে মদদ দিয়েছে পশ্চিমা দেশ এবং তাদেরই কোম্পানি। পরিণতিতে হুতু এবং তুতসিদের মধ্যে আরেক দফায় ভয়াবহ গৃহযুদ্ধ শুরু হয় ১৯৯০এর মধ্য পর্যায়ে। ১৯৯৪ সালের ভয়াবহ গৃহযুদ্ধে জাতিসংঘসহ বিভিন্ন সংস্থার হিসেবে, জাতিগত সংঘাতে নিহত হন কমপক্ষে ১০ লাখ মানুষ, যা ওই দেশটির জনসংখ্যার ২০ শতাংশের মতো। ওই গৃহযুদ্ধে গৃহহীন হয়েছে, স্বজন হারিয়েছে, বিপর্যস্ত ও বিপন্ন অবস্থায় পড়েছে অসংখ্য সাধারণ মানুষ। দেশটির এই রক্তাক্ত সাংঘর্ষিক অবস্থার পরিণতিতে, রুয়ান্ডা এখনও মাথা তুলে দাঁড়াতে পারেনি। অর্থনৈতিকভাবে কাটিয়ে উঠতে পারেনি সৃষ্ট নানাবিধ সঙ্কট। স্বজনহারা, গৃহহারা মানুষের কাছে এখনো ওই স্মৃতি বেদনার্থ এবং শোকের। সাধারণ মানুষ ওই গৃহযুদ্ধের শুরু করেনি, এমনকি এতে সক্রিয় অংশগ্রহণও তারা করেনি। যারা করেছিল তারা শাসক এবং ক্ষমতাবান শ্রেণী। আর এটা ছিল ক্ষমতা এবং কর্তৃত্বের লড়াই। বিস্তারিত »

আঁতাত রুখে দিয়েছে তরুণরা

আমীর খসরু

shahbagh-movement-1আবদুল কাদের মোল্লার ফাঁসির দাবিতে গত মঙ্গলবার রাতে শাহবাগে শুরু হওয়া তরুণদের স্বতঃস্ফুর্ত প্রতিবাদ এখন সকল যুদ্ধাপরাধীর ফাঁসির দাবিতে পরিণত হয়েছে। এই প্রতিবাদের উদ্যোক্তা তরুণ সমাজ। আর যখন এই প্রতিবাদ ব্যাপকতর রূপ নেয়, তখন এর সঙ্গে সংহতি জানিয়েছেন সব বয়সের শ্রেণী পেশার মানুষ।এমন স্বতঃস্ফুর্ত প্রতিবাদ, বিক্ষোভ এদেশে বহুকাল দেখা যায়নি। এর কৃতিত্ব পুরোটাই তরুণদের। বিস্তারিত »

দুর্নীতি…

এম হামিদ

corruption-1-সরকার গঠনের চার বছর শেষে দেশেবিদেশে নানামুখী চাপে রয়েছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। গত চার বছরে দুর্নীতি, অনিয়ম, হত্যা, গুম জনদুর্ভোগ, জ্বালানি তেল ও বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি, মূল্যস্ফীতি এবং নিজেদের সাংগঠনিক বিশৃঙ্খলার কারণে সরকারের ব্যর্থতার পাল্লাই ভারী হয়েছে। একের পর এক কেলেঙ্কারি ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। চলছে অর্থ আত্মসাতের ঘটনা। এর সঙ্গে ক্ষমতাসীনদের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে বলেও অভিযোগ উঠেছে। বিস্তারিত »