Home » অর্থনীতি (page 31)

অর্থনীতি

উত্তাল ষাটের দশক (ঊনবিংশ পর্ব)

নকশালবাড়ী আন্দোলনের প্রভাব এবং বামপন্থীদের সঙ্কট

হায়দার আকবর খান রনো

last 2ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থান হাজার হাজার বাম কমিউনিস্ট কর্মী সৃষ্টি করেছিল, যারা বিপ্লবী প্রত্যয় নিয়ে শ্রমিককৃষক আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়েছিলেন। আওয়ামী লীগের তরুণ অংশ অর্থাৎ ছাত্রলীগের বড় অংশের মধ্যে জাতীয়তাবাদী চেতনা দৃঢ়তর হয়েছিল। বহুধাবিভক্ত কমিউনিস্টদের সকল অংশই তখন বিপ্লবের স্বপ্ন দেখতেন। বামপন্থী ছাত্রদের মধ্যেও বিপ্লব টকবগ করছিল। বাম রাজনৈতিক কর্মীদের মধ্যে উচ্চতর সাংস্কৃতিক চেতনার বিকাশ ঘটেছিল।

এই বাম কর্মীরা নকশালবাড়ীর ঘটনার দ্বারা আকৃষ্ট হয়েছিলেন। বিশেষ করে চীনের কমিউনিস্ট পার্টি যখন চারু মজুমদার ও নকশালবাড়ী আন্দোলনকে সমর্থন দিয়েছিল, তখন তার প্রতি আকর্ষণ তৈরি হয়েছিল। তবে ’৬৯এর গণঅভ্যুত্থানের আগে নকশাল আন্দোলন সম্পর্কে কৌতূহল থাকলেও তা আমাদের দেশে প্রয়োগের জায়গায় যায়নি। ’৬৯এর শেষ ও ’৭০ সালেই নকশাল আন্দোলন চীনপন্থী দলগুলোকে প্রবলভাবে প্রভাবিত করলো। নকশাল আন্দোলনের বৈশিষ্টসমূহ ইতোপূর্বে উল্লেখ করা হয়েছে। তবু এখানে প্রাসঙ্গিকক্রমে সামান্য পুনরাবৃত্তি করতে হচ্ছে। বিস্তারিত »

শঙ্কা-উৎকণ্ঠায় ব্যবসায়ীরা

আমাদের বুধবার প্রতিবেদন

dis 4রাজনৈতিক অস্থিরতায় আবারও আতঙ্কে পড়েছেন ব্যবসায়ী ও শিল্প উদ্যোক্তারা। একদিকে বিরোধী দলীয় জোটের দেয়া কঠোর আন্দোলনের শঙ্কা, অন্যদিকে সরকারের অনমনীয় মনোভাব। সরকার ও বিরোধী দলের কর্মসূচি রাজনৈতিক মাঠ যখন উত্তপ্ত হওয়ার আশঙ্কা,তখন সে আশঙ্কা ও উৎকণ্ঠা ছড়িয়ে পড়েছে দেশের ব্যবসায়ীদের মধ্যে। ব্যবসায়ীদের মতে, সরকারের অনমনীয় মনোভাবে বিরোধী দলের ডাকা কঠোর থেকে কঠোর আন্দোলনে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে দেশের অর্থনীতি ও ব্যবসাবাণিজ্যে। বাধাগ্রস্ত হবে আমদানিরফতানি, ব্যবসাবাণিজ্য ও শিল্প কারখানার উৎপাদনসহ ব্যাংকিং লেনদেনও। ক্ষতিগ্রস্থ হবে ব্যবসায়ী ও শিল্প উদ্যোক্তাসহ সব নাগরিক। বিস্তারিত »

২০১৪ :: অর্থনীতিতে মন্দা আর স্থবিরতা

আমাদের বুধবার প্রতিবেদন

last 2এক বছর আগে মোটা চাল কেজিপ্রতি বিক্রি হয়েছে ৪০ টাকা, এখন সেটি বিক্রি হচ্ছে ৫৫ টাকা। ৩৬৫ দিনের ব্যবধানে চালের দাম বেড়েছে ১৫ টাকা। সুতরাং দেশের অর্থনীতি কিভাবে এগিয়ে যাচ্ছে তা সহজেই বোঝা যায়। অন্যদিকে সরকারিভাবে বলা হচ্ছে, স্বাভাবিকভাবেই প্রবৃদ্ধি বাড়ছে। তবে প্রশ্ন হলো এ এক বছরে দেশের সাধারণ মানুষের অবস্থার কি কোনো গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন হয়েছে? এক কথায় বলা যায়, না হয়নি। ২০১৪ সালে বছর জুড়ে ছিল নিত্যপণ্যের দামের উঠানামা। ভোজ্য তেলের দাম স্থির থাকলেও বেড়েছে প্রায় প্রতিটি নিত্যপণ্যের দাম। বিশ্বব্যাংকের হিসাবে আন্তর্জাতিক বাজারে বর্তমানে খাদ্যপণ্যের দাম চার বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন। চার মাসে খাবারের দাম বিশ্ববাজারে গড়ে ৬ শতাংশ হারে কমেছে। বিস্তারিত »

সার্কের আড়ালে ভারতের বিদ্যুৎ আধিপত্য – দ্বিতীয় লক্ষ্য বাংলাদেশ (তৃতীয় পর্ব)

বি. ডি. রহমতউল্লাহ্

last 4চুক্তির বিশ্লেষণ : ভারত কর্তৃক ১৩২০ মেঃ ওয়াটের কয়লা দিয়ে চালিত বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র নির্মানের অসম চুক্তি প্রসঙ্গে। বি.এন.পি আমলে শেষ দিকে ২০০৬ সালে ভারত যখন বাংলাদেশের কয়লা ব্যবহার করে দিনাজপুরে ১ হাজার মেগাওয়াটের বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন ও ঈশ্বরদীতে গ্যাস বা কয়লা দিয়ে ৫০০ মেঃ ওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন স্থাপন করতে তৎকালীন বিএনপি সরকারের ভিতর ঘাপটি মেরে বসে থাকা একদল দেশপ্রেম বর্জিত রাজনৈতিক ও আমলার কারসাজিতে এক অসম চুক্তির মাধ্যমে প্রায় স্থাপন করতে যাচ্ছিল, তখন সম্ভবতঃ আর্র্থিক লাভালাভের স্বাথর্ দ্বন্ধে সরকারের অভ্যন্তরীণ অন্য কোন গ্রুপের আপত্তি ও একদল দেশ প্রেমিক কর্মকর্তার অনড় ভূমিকায় এ প্রকল্প বাস্তবায়নে সফল হয়নি। এখন প্রশ্ন আসে তাহলে অসম চুক্তি কেন করা হলো? বিস্তারিত »

চীনকে সার্কের পূর্ণ সদস্য পদ দেয়া প্রশ্নে ভারতের বাধা

last 5নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুতে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত হয়ে গেল দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থা সার্কের শীর্ষ সম্মেলন। সম্মেলনে চীনকে সার্কের পূর্ণ সদস্য পদ দেয়া প্রশ্নে মতবিরোধ দেখা দেয় সদস্য রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে। ভারত চাইছে চীন যেন কোনোক্রমেই সার্কের পূর্ণ সদস্য হতে না পারে। জেনস ডিফেন্স উইকলির সংবাদদাতা রাহুল বেদি তারই বিস্তারিত এবং নেপথ্য কাহিনী তুলে ধরেছেন। জেনস ডিফেন্স উইকলির প্রতিবেদনের অনুবাদ করেছেন মোহাম্মদ হাসান শরীফ বিস্তারিত »

গেলো বছরটিতে কেমন ছিলেন নারীরা?

খুজিস্তা নূর ই নাহরীন মুন্নি

dis 5বাংলাদেশে বাড়ছে যৌন সন্ত্রাস,বাড়ছে ধর্ষণ সেই সাথে বাড়ছে নারীর ক্ষমতায়ন। তাহলে নারীর ক্ষমতায়ন কি করে সম্ভব? তার অর্থ, যৌন সন্ত্রাস আর ধর্ষণ যে ভাবে বাড়ছে নারীর ক্ষমতায়ন সে ভাবে হচ্ছে না বা বাড়ছে না। কারণ নারীরা ক্ষমতায়িত হওয়ার সাথে সাথে যৌন সন্ত্রাস আর ধর্ষণের বিলুপ্ত হওয়ার কথা ছিল, নিদেন পক্ষে কমার কথা ছিল। কিন্তু বাস্তবচিত্র ভিন্ন যদিও আমাদের দেশের প্রধান মন্ত্রী, সংসদে বিরোধী দলীয় নেত্রী এবং সংসদের বাইরে থাকা অপর এক বড় দলের নেত্রী তিন জনই নারী। কিন্তু বর্তমানে তিন জন গুরুত্বপূর্ণ নারী নেত্রীই ক্ষমতায় এসেছেন পুরুষতান্ত্রিকতার ধারাবাহিকতায় পরিবারতন্ত্রের হাত ধরে। দেশের শীর্ষপদে নারী থাকা মানেই নারীর অধিকার সমাজে নিশ্চিত হচ্ছে এমনটি ভাবার কোন অবকাশ নেই। বিস্তারিত »

সুন্দরবন ধ্বংসের সমন্বিত উদ্যোগ কার স্বার্থে?

শাহাদত হোসেন বাচ্চু

last 1জলে কুমীরসহ জলজ সকল প্রাণী আর ডাঙ্গার মানুষকেউই এখন আর নিরাপদ নয়। দক্ষিণ, দক্ষিণপশ্চিমের রক্ষাকবজ সুন্দরবনের ওপর ভর করা পরিবেশপ্রতিবেশ এবং প্রাণীকূলকে ধ্বংস করে ফেলার আয়োজন চলছে। দামামা বাজছে যেন, জলজ, বনজ, ডাঙ্গার কোন প্রাণী নিরাপদ থাকবে না। সুন্দরবন সন্নিহিত উপকূলবাসীর এখন প্রশ্ন একটাই সুন্দরবনকে ধ্বংস করার মত ঝুঁকি সরকার নিচ্ছে কেন? বড় বড় উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে গিয়ে একটি বিশ্ব ঐতিহ্য ও পৃথিবীর একক বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ কেন এভাবে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দেয়া হচ্ছে। রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মান শুরু করার পরে পাথরঘাটায় জাহাজভাঙ্গা শিল্প স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়ে সরকার ম্যানগ্রোভ সুন্দরবন ধ্বংসের কফিনে একটির পরে একটি পেরেক ঠুকে দিচ্ছে। বিস্তারিত »