Home » আন্তর্জাতিক (page 60)

আন্তর্জাতিক

নেপালের নির্বাচনে মাওবাদীদের পরাজয় ॥ হিন্দুত্ববাদী দলের উত্থান

মোহাম্মদ হাসান শরীফ

prachandaঅবশেষে নভেম্বরে নেপালে শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলো। অনেক অনিশ্চয়তা, সঙ্কট, নাটক ও অবিশ্বাস সত্ত্বেও জনগণ দ্বিতীয়বারের মতো সাংবিধানিক পরিষদ (কনস্টিটিউয়েন্ট এসেমব্লি) গঠনের জন্য সফলভাবে ভোটাধিকার প্রয়োগ করে। ২০০৮ সালে অনুষ্ঠিত প্রথম সিএ চার বছর ধরে চেষ্টা করেও সংবিধান প্রণয়ন করতে পারেনি। নানা ঘটনার পর ২০১২ সালে ওই পরিষদ ভেঙে দেওয়া হয়। ওই নির্বাচন অনুষ্ঠানের পর থেকে ভেঙে দেওয়া পর্যন্ত দেশটি গভীর রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক অনিশ্চয়তায় ছিল, সামাজিকভাবেও বিভক্ত হয়ে পড়েছিল। বিস্তারিত »

ভারতে গণতন্ত্রের ঘাটতি

অধ্যাপক কে এন পানিক্কর

indian-democracy[বিশ্বের বৃহত্তম গণতান্ত্রিক দেশ হিসেবে ভারত নিজেকে পরিচয় দিয়ে থাকে। কিন্তু এই গণতন্ত্রের বেশ কিছু সঙ্কট রয়েছে, রয়েছে ঘাটতি। দিল্লির জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের আধুনিক ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক কে এন পানিক্কর তার ‘ডেমোক্রেসি ডেফিসিট’ নিবন্ধে তার সুস্পষ্ট ব্যাখ্যা দিয়েছেন। ২০১১ সালের ২৬ আগস্ট ভারতের প্রভাবশালী ম্যাগাজিন ‘ফ্রন্টলাইন’এ নিবন্ধটি প্রকাশিত হলেও আজও এর প্রাসঙ্গিকতা দেখা যায়। এ কারণেই নিবন্ধটির বাংলা অনুবাদ ছাপা হলো সম্পাদক] বিস্তারিত »

বিদায় মহানায়ক ম্যান্ডেলা

হায়দার আকবর খান রনো

nelson-3মানব জাতির ইতিহাসে, বিশ্ব ইতিহাসে যে কয়জন মহাপুরুষ ইতিহাস নির্মাণ করেছেন, সভ্যতার দীপশিখাকে প্রজ্জলিত করেছেন, মানব মুক্তির পথ দেখিয়েছেন, নেলসন ম্যান্ডেলা তাদের একজন। ৯৫ বছর বয়সে এই মহাপুরুষ ও বিপ্লবী নেতার মৃত্যুতে প্রায় শতাব্দীব্যাপী ইতিহাসের এক অধ্যায়ের সমাপ্তি হলো। এই অধ্যায় হলো মানব সভ্যতার কলঙ্কের অধ্যায়। আবার একই সঙ্গে অপরাজেয় মানুষের সংগ্রাম ও বিজয়ের অধ্যায়। কৃষ্ণ আফ্রিকার দুই প্রতীকী নাম লুমুম্বা ও ম্যান্ডেলা। কঙ্গোর স্বাধীনতার মহান নেতা লুমুম্বাকে হত্যা করেছিল পাশ্চাত্যের সাম্রাজ্যবাদী শ্বেতাঙ্গ শাসকরাই মার্কিন, বৃটেন, ফ্রান্স, বেলজিয়াম পশ্চিমা দেশের শাসকরা যারা সভ্যতার গর্ব করে চরম বর্বরতার দৃষ্টান্ত তৈরি করেছে। একই ভাবে ম্যান্ডেলাকেও তারা হত্যা করতে চেয়েছিল। ২৭ বছর জেলের অন্ধ প্রকোষ্টে রেখে তাকে মারতেই চেয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবাদী শাসক ও তাদের মদদদানকারী ইঙ্গমার্কিন সাম্রাজ্যবাদ। বিস্তারিত »

শ্রমিক অসন্তোষে গার্মেন্টসের অর্ডার চলে যাচ্ছে ভারতে

fashion-indiaবাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পে অব্যাহত শ্রমিক অসন্তোষের কারণে এ খাত ভয়াবহ এক সঙ্কটের মুখোমুখি। এ সঙ্কটের কারণে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপসহ পশ্চিমী দুনিয়ার ক্রেতারা এখন ঝুঁকে পড়েছে ভারতের দিকে। ভারতই লাভবান হচ্ছে বাংলাদেশের এই অসন্তোষে। আর ভারতের ইকোনমিক টাইমস ৫ ডিসেম্বর এক প্রতিবেদনে সে তথ্যই দিয়েছে। বিস্তারিত »

এশীয় প্রশান্ত মহাসাগর :: চীন বনাম যুক্তরাষ্ট্র

ভারত যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে পূর্ণমাত্রার সামরিক জোটে রাজি নয়

ফ্রন্টলাইন অবলম্বনে মোহাম্মাদ হাসান শরীফ

india-usaযুক্তরাষ্ট্র আবারো এশীয় প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের দিকে পূর্ণ মনোযোগ দিয়েছে। একদিকে ওই অঞ্চলে নিজের আধিপত্য প্রতিষ্ঠা, অন্যদিকে চীনের ক্রমবর্ধমান প্রভাব রুখে দেওয়া তার লক্ষ্য। একসময়ে ওই অঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্রের বিরাট ভূমিকা ছিল। ১৯৫০ সাল থেকে তারা এখানে দুটি যুদ্ধ করেছেএকটি কোরিয়ান উপদ্বীপে, অপরটি ইন্দোচীনে। এর আগে মার্কিন সেনাবাহিনী ফিলিপাইনে যুদ্ধ করেছে। সেখানে প্রথমে তারা স্প্যানিশ উপনিবেশ শাসকদের বিরুদ্ধে এবং তারপর ফিলিপিনো জাতীয়তাবাদী বাহিনীর বিরুদ্ধে নেমেছিল। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে জাপানি রাজকীয় বাহিনীকে পরাস্ত করার ব্যাপারেও যুক্তরাষ্ট্র নেতৃত্ব দিয়েছিল। তবে এখন ওই অঞ্চলে মার্কিন আধিপত্য বিস্তারে জাপান তার প্রধান মিত্র। বিস্তারিত »

ফুকুশিমা : নজিরবিহীন বৈশ্বিক হুমকি – শেষ পর্ব

কেভিন জেসি এবং মার্গারেট ফ্লাওয়ার্স

সূত্র : জেড নেট

মোহাম্মদ হাসান শরীফ

fukoshimaমিডিয়ায় কিছু প্রকাশ হতে না দেওয়ার চেষ্টা থেকে বিরত থাকা। ফুকুশিমা থেকে কী কী বিপদ আসতে পারে, সে সম্পর্কে বিশ্বের সবার ভালোভাবে জানা থাকা প্রয়োজন

ফুকুশিমার প্রধান সমস্যা তিনটি। এগুলোর কোনোটিই ইতোপূর্বে কোনো প্লান্টে দেখা যায়নি। আবার তিনটিই মানুষ ও পরিবেশের জন্য মারাত্মক বিপর্যয় সৃষ্টি করতে পারে। এসব সমস্যার সুনির্দিষ্ট কোনো সমাধান নেই। কিন্তু তবুও সম্ভাব্য ক্ষতি কমানোর জন্য জরুরি ভিত্তিতে কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করা দরকার।

প্রথম যে পদক্ষেপটি গ্রহণ করা দরকার তা হলো মিডিয়ায় কিছু প্রকাশ হতে না দেওয়ার চেষ্টা থেকে বিরত থাকা। বিস্তারিত »

তেল-গ্যাস লুট দেশে দেশে

এক রহস্যময়ী নারী

ফারুক চৌধুরী

oil-goldজাতিসংঘ প্রতিবেদনে উল্লেখিত হয়েছে এক নারীর নাম। তিনি যেন নায়িকা। তিনি আজিজা কুলসুম গুলাম আলি। মিসেস গুলাম আলির কয়েকটি পাসপোর্ট। তিনি থাকেন কখনো বুকাভুতে, কখনো ব্রাসেলসে, কখনো বা নাইজেরিয়াতে। ব্যাপারটি নির্ভর করে তার কাজের ওপরে। এ মিসেস ইতিপূর্বে বুরুন্ডিতে গৃহযুদ্ধে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। তিনি বুরুন্ডিতে একদল বিদ্রোহীকে অস্ত্র ও অর্থ যোগান দিয়েছিলেন। এরপরে তিনি নতুন জোট গড়ে তোলেন রুয়ান্ডার সরকারের সঙ্গে, হয়ে ওঠেন কিগালি সরকারের বড় মিত্র। মিসেস গুলাম আলি রুয়ান্ডা নিয়ন্ত্রিত এলাকায় সোনা, কোলটান ও ক্যাসিটেরাইট ব্যবসায়ে জড়ান। বিস্তারিত »