Home » আন্তর্জাতিক (page 61)

আন্তর্জাতিক

টিকফা চুক্তি: বাংলাদেশের দীর্ঘমেয়াদী বিপদ ও শৃঙ্খল

আনু মুহাম্মদ

ticfaজনগণের সম্মতি না নিয়ে, নির্বাচিত সংস্থায় কোন আলোচনা না করে, উত্থাপিত কোন প্রশ্নের মীমাংসা না করে, নির্বাচনকালীন সরকারের স্বঘোষিত কর্তব্যপরিধি লংঘন করে সরকার যুক্তরাষ্ট্রের সাথে টিকফা চুক্তি স্বাক্ষর করলো। এই চুক্তির মধ্য দিয়ে ক্ষমতায় টিকে থাকার প্রতিযোগিতায় এগিয়ে থাকতে গিয়ে সরকার বাংলাদেশকে দীর্ঘমেয়াদী বিপদ ও শৃঙ্খলে ঠেলে দিলো। কেন সে বিষয়টিই এখানে সংক্ষেপে আলোচনা করছি।

টিকফা বা ‘ট্রেড এন্ড ইনভেস্টমেন্ট কোঅপারেশন ফোরাম এগ্রিমেন্ট’ নামের চুক্তি এতোদিন টিফা বা ‘ট্রেড এন্ড ইনভেস্টমেন্ট ফ্রেমওয়ার্ক এগ্রিমেন্ট’ নামে পরিচিত ছিলো। বিস্তারিত »

নতুন মাত্রায় রুশ-ভারত সামরিক সম্পর্ক

মোহাম্মদ হাসান শরীফ

india-russiaদৈত্যাকার বিমানবাহী রণতরী আইএনএস বিক্রমাদিত্য হস্তান্তরের মধ্য দিয়ে সম্প্রতি ভারত ও রাশিয়ার মধ্যকার সামরিক সম্পর্ক নতুন দিগন্তে প্রবেশ করল। তবে তা কেবল ভারত রুশ গাঁটছড়ায় সীমিত থাকবে না, ভারত মহাসাগর, প্রশান্ত মহাসাগর হয়ে আনাচেকানাচে ছড়িয়ে পড়তে পারে।

আর্কটিক বন্দর সেভোরোদভিনস্কে বিক্রমাদিত্যের হস্তান্তর অনুষ্ঠান হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী এ কে অ্যান্টনি ও রাশিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি রোগোজিন। এসময় অ্যান্টনি বলেন, এটা ‘ভারত ও রাশিয়ার মধ্যকার দীর্ঘস্থায়ী সম্পর্কের আরেকটি উজ্জ্বল উদাহরণ।’ বিস্তারিত »

ফুকুশিমা : নজিরবিহীন বৈশ্বিক হুমকি – দ্বিতীয় পর্ব

কেভিন জেসি এবং মার্গারেট ফ্লাওয়ার্স

সূত্র: জেড নেট

মোহাম্মদ হাসান শরীফ

fukoshimaফুকুশিমা থেকে নির্গত তেজষ্ক্রিয় পানি প্রশান্ত মহাসাগরে কতদূর বিস্তৃত হয়েছে, তার কোনো পরিসীমা নেই। হার্ভে ওয়াসারম্যানের কাছেও এই প্রশ্নের কোনো জবাব নেই যে ফুকুশিমার তেজষ্ক্রিয়তা ছড়িয়ে পড়ার পর কত বছর পর প্রশান্ত মহাসাগরের মাছ খাওয়া যাবে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) যদিও জানিয়েছে, তেজষ্ক্রিয়তার মাত্রা কম থাকায় মানব স্বাস্থ্যের জন্য এখানকার মাছ খুব একটা ক্ষতিকর হবে না, কিন্তু বিশেষজ্ঞরা এই অভিমতের ব্যাপারে প্রবল আপত্তি জানিয়েছে।

এই প্রতিবেদন যখন লেখা হচ্ছিল, তখন তেজষ্ক্রিয়তাবিষয়ক জাতিসংঘ বৈজ্ঞানিক কমিটি তাদের মূল্যায়ন তৈরি করছিল। বিস্তারিত »

ফুকুশিমা : নজিরবিহীন বৈশ্বিক হুমকি – প্রথম পর্ব

কেভিন জেসি এবং মার্গারেট ফ্লাওয়ার্স

সূত্র: জেড নেট

অনুবাদ: মোহাম্মদ হাসান শরীফ

fukoshimaবিজ্ঞানীরা সব ধরনের গোপনীয়তা পরিহার করার আহ্বান জানিয়েছেন। তারা কোনো ধরনের রাখঢাক ছাড়াই সব তথ্য সংবাদমাধ্যমে প্রকাশের দাবি জানিয়েছেন। ৯ ও ১০ নভেম্বর ফুকুশিমা দিবস ঘোষণা করার কথাও বলেছেন।

প্রথমে যতটুকু আশঙ্কা করা হচ্ছিল, বর্তমানে ফুকুশিমা পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্লান্ট থেকে তার চেয়ে অনেক বেশি তেজষ্ক্রিয় নির্গত হচ্ছে। আর এই বিপদ কেবল জাপানেই সীমাবদ্ধ থাকছে না, বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে পড়ছে। বিশেষ করে সাগরের পানির মাধ্যমে কল্পনাতীত বিপদ সৃষ্টি করছে। বিস্তারিত »

তেল-গ্যাস লুট দেশে দেশে

লুটের কথা জানে বিশ্বব্যাংক

ফারুক চৌধুরী

oil-5কঙ্গোতে লুটের ‘কাহিনী’ বিষয়ে জাতিসংঘের প্রতিবেদনে বলা হয় : সেখানে সংঘাতের ধরণটি লোভনীয়। এ কারণে এ সংঘাত বিবদমান সব পক্ষের জন্যই লাভজনক পরিস্থিতি তৈরি করেছে। শত্রুরা, বৈরী পক্ষগুলো ব্যবসায়ের শরিক, খনিতে মজুর হিসেবে কাজ করতে হয় বন্দিদের। শত্রুরা একই ব্যবসায়ীর কাছ থেকে অস্ত্র পায়, অস্ত্র বেচাকেনার মধ্যস্থতাকারীরাও একই। ব্যবসা আড়াল করে ফেলেছে নিরাপত্তার বিষয়গুলোকে। এ ব্যবসা উদ্যোগে লোকসান হয় কেবল কঙ্গোর জনগণের। বিস্তারিত »

আন্তর্জাতিক অস্ত্র ব্যবসার নেপথ্যে (শেষ পর্ব)

অস্ত্র বিক্রির গোপন লেনদেনের চিত্র প্রকাশ পেতে শুরু করেছে

ডেভিড লে এবং রব ইভানস, দি গার্ডিয়ান থেকে

arms tradeবিএই’র যে সব শেয়ারের দর পড়ে গিয়েছিল ইতোমধ্যে সেগুলোতে আবার তেজীভাব লক্ষ্য করা গেল। অনেকেই মনে করেন, গোল্ডস্মিথ তার দায়িত্বের প্রতি বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন। কিন্তু বাস্তবে তিনি যা করেছেন সেটি অত্যন্ত খারাপ একটি কাজ। দুর্নীতি বিরোধী যুক্তরাজ্যের একমাত্র প্রতিষ্ঠানটি তিনি কার্যকরভাবেই ধ্বংস করে দিয়েছেন। হোয়াইট হলের গোলমেলে পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে তিনি ঘোষণা করে দেন, বিদেশী কোনো ঘুষ গ্রহণকারী যতোক্ষণ পর্যন্ত না স্বীকার করবেন যে, তিনি তার পক্ষ হয়ে ঘুষের অর্থ গ্রহণ করার জন্য নিজের অধীনস্থ কাউকে দায়িত্ব দেননি, ততোক্ষণ পর্যন্ত ২০০২ আইনের আওতায় ঘুষ প্রদানের দায়ে কারো বিরুদ্ধে কোনো রকম শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া যাবে না। বাস্তবে এর অর্থ দাঁড়াল এই যে, এসএফও বিশ্বের কারো বিরুদ্ধে কোনো রকম শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া যাবে না। বিস্তারিত »

বাংলাদেশ প্রশ্নে ভারতের সঙ্গে অন্য শক্তির মতপার্থক্য

আমীর খসরু

usa-india-chinaবাংলাদেশের চলমান সঙ্কটের প্রেক্ষাপটে এর ভবিষ্যৎ প্রশ্নে আঞ্চলিক এবং আন্তর্জাতিক শক্তির মধ্যে মতভিন্নতা ও মতপার্থক্যের সৃষ্টি হয়েছে। মূল বিষয়টি হচ্ছে প্রভাব বিস্তার এবং কর্তৃত্ব নিয়ে। অর্থাৎ ভারসাম্যের ক্ষেত্রে পাল্লা কার দিকে ভারি থাকবে। আর এই পাল্লা ভারি রাখতে গিয়ে বর্তমান রাজনৈতিক সঙ্কট নিরসন, ভবিষ্যত নির্বাচন এবং আগামীর সরকারটি কেমন হবে সে প্রশ্নটি তাদের কাছে মুখ্য হয়ে দেখা দিয়েছে। বিস্তারিত »