Home » আন্তর্জাতিক (page 64)

আন্তর্জাতিক

মিশর – বিপ্লব না প্রত্যাবর্তন (পর্ব – ৩)

আইজাজ আহমদ

স্বেচ্ছাচারী, একনায়কতান্ত্রিক পদক্ষেপের বিরুদ্ধে ইতিহাসে বৃহত্তম নগর বিক্ষোভ

egypt-3মুরসির দল সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোট সংগ্রহ করতে পেরেছেএই কারণে তিনি মিশরের প্রেসিডেন্ট হননি, কিংবা মোবারকপন্থীদের ক্ষমতা দখল ঠেকাতে অন্যান্য রাজনৈতিক দল তাকে ভোট দিয়েছিল কেবল সেই কারণেও নয়। বরং তার প্রেসিডেন্ট হওয়ার মূল কারণ ছিল তিনি সেনাবাহিনী এবং সেইসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইলি পৃষ্ঠপোষকদের সঙ্গে আপস করেছিলেন এবং সংশ্লিষ্ট সবার জন্য তাকে দিয়ে সরকার গঠন করা এবং গণআন্দোলনকে পার্লামেন্টারি ব্যবস্থার প্রতি মোহাবিষ্টে আবিষ্ট করা সহজ ছিল। গণআন্দোলনটির স্থানীয়করণ ছিল প্রকৃত বিষয়। বিস্তারিত »

চীনকে ঘিরে ফেলার মার্কিন নতুন পরিকল্পনা

মোহাম্মদ হাসান শরীফ, ফরেন পলিসি থেকে

us-chinaবিমান ঘাঁটি ও সামরিক চৌকির শৃঙ্খল দিয়ে মার্কিন সামরিক বাহিনী চীনকে ঘিরে ফেলছে। এই পরিকল্পনার সর্বশেষ অবস্থা হলো, প্রশান্ত মহাসাগরীয় ক্ষুদ্র দ্বীপ সাইপ্যানে (জনসংখ্যা মাত্র ৪৮,২২০ ম্যারিয়ানা আইল্যান্ডসে গুয়ামের পর এটাই দ্বিতীয় বৃহত্তম দ্বীপ) একটি ছোট বিমান অবতরণক্ষেত্র নির্মাণ। মার্কিন বিমান বাহিনী সেখানে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ আমলের একটি পুরনো বিমানঘাঁটিকে ‘ডাইভার্ট এয়ারফিল্ডে’ রূপান্তরিত করতে ৩৩ একর জমি ৫০ বছরের জন্য লিজ নেওয়ার পরিকল্পনা করছে। বিস্তারিত »

আন্তর্জাতিক অস্ত্র ব্যবসার নেপথ্যে (পর্ব – ৭)

ডেভিড লে এবং রব ইভানস, দি গার্ডিয়ান থেকে

অস্ত্র ব্যবসার দুর্নীতি লুকিয়েছে ব্রিটিশ সরকার

arms tradeঅস্ত্র বিক্রয়ে ঘুষ লেনদেনের সঙ্গে ব্রিটিশ সরকারের সংশ্লিষ্টতার বিষয়টি ধামাচাপা দিয়ে রেখেছিলেন ১৯৭৬৭৯ সময়ের ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী জেমস কালাহান। ১৯৭৫ সালের ৬ জুন ফরাসি জেনারেল পল স্টেনলি একটি বাসের সামনে ঝাঁপিয়ে পড়েন। তথাকথিত লকহিড কেলেঙ্কারির প্রথম বলি তিনিই। এ ঘটনার পরই আন্তর্জাতিক অস্ত্র ব্যবসার ক্ষেত্রে একটি সংস্কার আনার চেষ্টা শুরু হয়। বিদেশে ঘুষ প্রদান বেআইনি ঘোষণা করে যুক্তরাষ্ট্র ফরেন করাল্ট প্র্যাকটিসেস অ্যাক্ট পাস করে। তবে তারপরও ব্রিটিশ সরকার তার দুর্নীতির ঘটনাগুলো কীভাবে লুকিয়ে রাখতে পেয়েছিল সে সম্পর্কে আজ পর্যন্ত কিছুই জানা যায়নি। বিস্তারিত »

তেল-গ্যাস লুট দেশে দেশে

বিশাল দেশ বিপুল সম্পদ আর মৃত্যুর দীর্ঘ মিছিল

ফারুক চৌধুরী

oil-politicsকঙ্গো আয়তনের দিক থেকে বিশাল এক দেশ, বাংলাদেশের প্রায় ১৭ গুণ বড়। এ বিশাল দেশের দুর্দশায় ইতিহাসও বিশাল। দীর্ঘ সে ইতিহাস যেন দখল, লুট, গৃহযুদ্ধ, দুর্নীতি, আততায়ীর দীর্ঘ ছায়া, অভ্যুত্থান, হানাহানি আর এ সবের সঙ্গে থাকা মৃত্যুর মিছিল। দীর্ঘ সে মিছিল। সেই সঙ্গে লাখ লাখ মানুষ বসতচ্যুত। মহামারীও যেন পাল্লা দেয়া এসবের সঙ্গে। তাই গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্রের পতাকায় রক্তিম লাল রেখা তার দেশের নাগরিকদের রক্তকেই স্মরণ করে। বিস্তারিত »

মিশর – বিপ্লব না প্রত্যাবর্তন (পর্ব – ২)

আইজাজ আহমদ

ইখওয়ান কিছু কথা

egypt-1মিশরীয় ইখওয়ানের প্রপঞ্চ ভালোমতো উপলব্ধি করা হয়নি এবং এখানে সেগুলো খতিয়ে দেখারও অবকাশ নেই। তবে কিছুটা বিশ্লেষণ করা দরকার। প্রথমত তারা পুরনো আমলের আধাপাগলা কাঠমোল্লা জাতীয় লোক নন। তারা সামাজিকভাবে রক্ষণশীল হলেও তাদের নব্যঐতিহ্যবাদ পুরোপুরি আধুনিক। তাদের গণভিত্তি অবশ্যই খুবই বিস্তৃত। তাদের ক্যাডারদের বেশির ভাগই আসে শহর এলাকা থেকে। এসব ক্যাডার শিক্ষিত, পেশাদার এবং বণিক ও ব্যবসায়ী শ্রেণীর সদস্য। প্রায় ৮০ বছর ধরে তারা সক্রিয়, ১৯৪০এর দশকের মধ্যেই তারা মিশরীয় রাজনীতিতে গণ্য করার মতো শক্তিধরে পরিণত হয়। বিস্তারিত »

ওবামার কাছে খোলাচিঠি

জেড নেট থেকে অনুবাদ মোহাম্মদ হাসান শরীফ

open-letter(নোবেল পুরস্কারজয়ী অ্যাডোলফো পেরেজ এসকুইভেল সম্প্রতি খোলা চিঠি লিখেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার কাছে। এক নোবেল পুরস্কার বিজয়ীর কাছে অপর জয়ীর চিঠি সবসময়েই বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। তবে সাম্প্রতিক সিরিয়া সঙ্কটের প্রেক্ষাপটে চিঠিটির গুরুত্ব আরো বেড়েছে।)

জনগণের চিৎকার শুনুন!

সিরিয়ার পরিস্থিতি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে পরিণত হয়েছে এবং যুক্তরাষ্ট্র আবারো বিশ্বের পুলিশি ভূমিকা গ্রহণ করে ‘স্বাধীনতা’ ও ‘মানবাধিকার’ রক্ষার নামে সিরিয়ায় আক্রমণ শানানোর প্রস্তাব করেছে। বিস্তারিত »

মিশর – বিপ্লব না প্রত্যাবর্তন (পর্ব – ১)

আইজাজ আহমদ

egypt-1গত তিন বছরের কম সময়ে (২০১১ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে ২০১৩ সালের আগস্ট পর্যন্ত) মিশরের ইতিহাসে নজিরবিহীন দুটি বিশাল গণঅভ্যুত্থান ঘটেছে। প্রথম গণঅভ্যুত্থানে ১৯৬৭ সালের যুদ্ধে পরাজয়ের পর থেকে, বিশেষ করে মিশরে আনোয়ার সাদতের অভ্যুদয়ের পর থেকে, মিশরীয় রাজনীতিতে চেপে বসা জগদ্দল পাথর অপসৃত হয় এবং এই প্রক্রিয়ায় হোসনি মোবারকের স্বৈরতন্ত্র উৎখাত হয়। দ্বিতীয়টি, আরো সাম্প্রতিক এবং এমনকি আরো বড় ধরনের গণঅভ্যুত্থানটি, যেটাকে অনেকে ‘জুন ৩০ আন্দোলন’ হিসেবে অভিহিত করছে, ছিল আসলে মুসলিম ব্রাদারহুডকে (আরবিতে যার নাম ইখওয়ান, এই প্রবন্ধে দলটিকে এই নামেই অভিহিত করা হবে) তার নিজস্ব একদলীয় স্বৈরতন্ত্র প্রতিষ্ঠা থেকে বিরত থাকতে বাধ্য করেছে। বিস্তারিত »