Home » মতামত (page 3)

মতামত

গণতন্ত্র না উন্নয়ন

প্রকাশকাল ২৯ জুন ২০১৫

মীজানূর রহমান শেলী

Last 1আজকের দুনিয়ায় গণতন্ত্রের বিকল্প নেই বলে সবাই স্বীকার করেন। বিশেষ করে উনিশশো নব্বই এর দশকে সারা বিশ্বে গণতন্ত্রের জোয়ারে বহু দিনের একনায়কতন্ত্র প্রায় বিলুপ্ত হয়ে যায়। এই একই প্রক্রিয়ায় আমরা দেখি, পূর্ব ইউরোপে এবং সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নে যে সমাজতান্ত্রিক একনায়কতন্ত্র বলবৎ ছিল তার কার্যত বিলুপ্তি ঘটে। সেই অন্যান্য দেশে যেখানে আদর্শিক বা আদর্শবিহীন একনায়কতান্ত্রিক ব্যবস্থা প্রচলিত ছিল, সেখানেও গণতন্ত্রের জোয়ারে তা ভেসে যেতে বাধ্য হয়। এ অবস্থার সমান্তরালে আমরা আরেকটি জিনিস দেখি, দুনিয়াতে মুক্তবাজার তথা বাজারবান্ধব অর্থনীতির প্রাবল্য। একদিকে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা, অন্যদিকে মুক্তবাজারের মাধ্যমে ব্যক্তি উদ্যোগের বিকাশের ফলে দেশ ও জাতির দ্রুত সার্বিক উন্নয়ন। বিস্তারিত »

জনগণের কল্যাণ :: প্রয়োজন গণতন্ত্র আর উন্নয়ন উভয়ই

প্রকাশকাল ২৯ জুন ২০১৫

. সালেহউদ্দিন আহমেদ

Last 2একটি রাষ্ট্রের জনগণের আর্থিক সামাজিক উন্নয়নের জন্য প্রয়োজনীয় দুটি আবশ্যক জিনিস হলো রাষ্ট্রীয় কাঠামো এবং রাষ্ট্র কর্তৃক গৃহীত জনগণের কল্যাণে কার্যক্রম পরিচালনা করা। এ দুটি দিকের মাঝখানে প্রয়োজনীয় স্তর হলো একটি সরকার। রাষ্ট্রের মূল কাঠামো ও নীতির মধ্যেই একটি সরকার জনগণের কল্যাণ এবং জনগণকে সেবা দেয়ার জন্য কাজ করে থাকে। একটি সার্বভৌম রাষ্ট্রের মূল ভিত্তি হলো সে দেশের নাগরিক। রাষ্ট্র এবং নাগরিক পরিবর্তনশীল নয়। কিন্তু, সরকার পরিবর্তনশীল।

বর্তমানে একটি তর্ক দেখা গিয়েছে যে, গণতন্ত্র এবং উন্নয়ন দুটি একটি অন্যটির সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। বিস্তারিত »

বাংলাদেশ কি আগের চেয়ে কম ধর্মনিরপেক্ষ হয়ে গেছে?

প্রকাশকাল ১১ নভেম্বর ২০১৫

তাজ হাশমী

Last-1তারা কাজটা আবার করল। মুক্তচিন্তক অভিজিৎ রায়ের বই প্রকাশ করার জন্য অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকজন ঘাতক ৩১ অক্টোবর ফয়সাল আরেফিন দীপনকে ঢাকায় তার অফিসে কুপিয়ে হত্যা করেছে। সম্ভাবনা ক্ষীণ, তবুও আশা করছি যে এবার আর ঘাতকেরা বিচার বিভাগের আওতার বাইরে থাকবে না। এবং এর চেয়েও খারাপ কিছু হওয়ার যে আশঙ্কা রয়েছে তাও হবে না, অর্থাৎ পুলিশ এই হত্যাকাণ্ডের জন্য অন্যায়ভাবে কয়েকজন নির্দোষ ব্যক্তিকে আটকাবে না। কেউ নিশ্চিত হতে পারছে না, অতিধর্মনিরপেক্ষ (আলট্রাসেক্যুলার) ও ইসলামাতঙ্কগ্রস্ত লেখকদের হত্যা করাটা বাংলাদেশের দ্রুত ‘আরবীকরণ’ বা ‘ধর্মনিরপেক্ষতাবাদমুক্তকরণ’ করার সাথে সম্পর্কযুক্ত কি না। যারা ২০০৪ সালে হুমায়ুন আজাদের মতো মুক্তিচিন্তাবিদের ওপর হামলা চালিয়েছে এবং গত দুই বছরে অভিজিৎ রায়সহ অর্ধ ডজন লেখককে হত্যা করেছে, পুলিশ এখন পর্যন্ত তাদের কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

দীপনকে কারা হত্যা করেছে, কারা অপর তিনজনকে আহত করেছে, সে ব্যাপারে কেউ নিশ্চিত নয়। তারা কি স্রেফ ‘ধর্মনিরপেক্ষবাদের শত্রু?’ বিস্তারিত »

জঙ্গীবাদ-সন্ত্রাসবাদের অর্থনৈতিক ক্ষতি

প্রকাশকাল ২ ডিসেম্বর ২০১৫

এম. জাকির হোসেন খান

Last-2২০১৪ সালে সন্ত্রাসবাদের কারণে বৈশ্বিকভাবে ৫২.৯ বিলিয়ন ইউএস ডলার অর্থনৈতিক ক্ষতিসহ সার্বিকভাবে সর্বমোট অর্থনৈতিক ক্ষতি ছিলো ১০৫.৮ বিলিয়ন ডলার। শুধুমাত্র ২০০৫ সালে ইরাকের সন্ত্রাসী কার্যক্রমের ফলে ক্ষতির হিসাব করলে পিপিপি হিসেবে তা প্রায় ১৫৯ বিলিয়ন ডলারে দাড়িয়েছে যা ২০১৪ সালের ইরাকের জিডিপি’র ৩২ শতাংশের সমান। সন্ত্রাসবাদের বৈশ্বিক অর্থনৈতিক ব্যয় পরিমাপে অর্থনীতি এবং শান্তি ইনষ্টিটিউট (ইপিআই)-এর বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদ সূচকে ২০১৫ সংঘাতের অর্থনৈতিক ব্যয় প্রাক্কলন পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়েছে যার আওতায় জীবন হানি, সম্পত্তি ধ্বংস ও মুক্তিপণ প্রদানের ফলে প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ খরচ অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। ২০০১ সাল থেকে বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদের অর্থনৈতিক ব্যয় সর্বোচ্চ ছিল। বিস্তারিত »

সৌদি সামরিক জোটে অংশগ্রহণের ফলাফল নিয়ে প্রশ্ন

আমীর খসরু

Last 1জঙ্গীবাদী নানা সংগঠনের বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাপী জোট গঠনের বিষয়টি একেবারে নতুন নয়। আগে আল কায়েদা জাতীয় সংগঠনের বিরুদ্ধে এ ধরনের জোট গঠনের প্রচেষ্টা ছিল। সাম্প্রতিককালে বেশ জোরেশোরে সেই স্থান দখল করেছে প্রধানত ইসলামিক স্টেট বা আইএস। তবে এসব জোট গঠনের বিষয়টি বিভিন্ন সরকারসমূহের সাথে একান্ত নিজস্বভাবে আলোচনা করেই করা হয় এবং এটির কর্মপরিকল্পনা সম্পর্কে গোপনীয়তা বজায় রাখা হয়। কিন্তু জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে লড়াইসংগ্রামে বিশ্বব্যাপী জনগণকে সম্পৃক্ত করার বিষয়টির সম্পূর্ণ অনুপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। বিস্তারিত »

তাজউদ্দীন আহমদের রাজনৈতিক জীবন (পর্ব – ৪)

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী

Last-3ঢাকা শহরে তাঁর থাকার বন্দোবস্ত নেই। স্কলারশিপের টাকা পান; তা পর্যাপ্ত নয়। তাই লজিংএ থাকতে হয়। সেটা কোনো সম্মানজনক ব্যবস্থা নয়, এতে থাকাখাওয়ার বিনিময়ে গৃহশিক্ষকতার দায়িত্ব থাকে। গ্রামের বাড়ী থেকে মাঝে মধ্যে কিছু টাকা আসে, তবে বোঝা যায় যে তা তিনি নিতে চান না। কমরেড ব্যাংকে এ্যাকাউন্ট ছিল; ব্যাংকটি বন্ধ হয়ে যাবে এমন আভাস পাওয়া যাচ্ছে, অর্থাৎ সেখানকার সঞ্চয় হারানোর আশঙ্কা। কিন্তু এসব সমস্যা নিয়ে তিনি যে বিচলিত তা মনে হচ্ছে না। লজিংএ থাকতে হয় বলে তাঁর ভেতর হীনমন্যতাবোধ নেই। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রাবস্থায় ফজলুল হক হলে থাকতেন; কিন্তু এক পর্যায়ে হল ছেড়ে মেসে চলে যেতে হয়। কারণটা হাউজ টিউটরদের একজন সঠিক ভাবেই আন্দাজ করতে পেরেছিলেন। বিস্তারিত »

ধর্মনিরপেক্ষতা যখন শাসকবর্গের হাতিয়ার

আমীর খসরু ও শাহাদত হোসেন বাচ্চু

Last-1প্রসঙ্গটি নতুন নয়। ধর্মের রাজনৈতিক ব্যবহার এবং বিভাজনের রাজনীতির শুরুতেই প্রসঙ্গটি ছিল নাস্তিকতাবাদ বা নাস্তিক। পাকিস্তান ও বাংলাদেশ আমলে কমিউনিষ্ট ঘরানার রাজনীতির সাথে যুক্তদের নাস্তিক হিসেবে অভিহিত করা হতো। পাকিস্তানের শাসকশ্রেনীর বিরুদ্ধে প্রতিবাদী যে কাউকেই তাৎক্ষণিক নাস্তিক হিসেবে চিহ্নিত করা হতো। প্রগতিশীল যে কোন মানুষকে সহজেই এই অভিধায় অভিষিক্ত করা যেত। যেমন বাঙালীদের কাফের হিসেবে আখ্যায়িত করে ‘৭১এ নিষ্ঠুর গণহত্যা চালানো হয়। সুতরাং শুরু থেকেই নাস্তিক শব্দটি ব্যবহৃত হয়েছে ধর্মাশ্রয়ী রাজনীতিতে শোষণের মৌল উপাদান হিসেবে। বিস্তারিত »