Home » রাজনীতি (page 10)

রাজনীতি

সরকারি ব্যয়ে শতকোটি টাকার পৌর নির্বাচন

এম. জাকির হোসেন খান

Last 2কারচুপিঅনিয়মের কারণে ভোটাররা প্রতারিত হয়েছেন। এ নির্বাচন দিয়ে গণতন্ত্র নিশ্চিত হবে না। অনেকের ভ্রান্ত ধারণা যে নির্বাচন নিয়মিত হচ্ছে, তার মানেই এখানে গণতন্ত্র আছে তা ঠিক নয়। যেখানে ভোটাররা লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন কিন্তু ভোটকেন্দ্রের ভেতরে ভিন্ন দৃশ্য, আগে থেকেই ছাপদেয়া ব্যালট পেপার দিয়ে বাক্স ভরা হয়এটা কি ভোটারদের সাথে প্রতারণা নয়? নানা অনিয়মের কারণে ভোটারদের মধ্যে হতাশা দেখা দিয়েছে এবং নির্বাচন নিয়ে আস্থার সঙ্কট আরো বেড়েছে’। গত ৩০ ডিসেম্বর বিবিসি বাংলার প্রবাহ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথম দলীয় প্রতীকে অনুষ্ঠিত পৌরসভার মেয়র নির্বাচনকে রাজনীতি বিশ্লেষক ড. নাসিম আখতার হুসাইন মূল্যায়ন করেন এভাবেই। বিস্তারিত »

পৌর নির্বাচন :: ক্ষমতাসীনরা আরও বেপরোয়া হয়ে উঠবে

আমাদের বুধবার প্রতিবেদন

Municipal 1111রাষ্ট্র ব্যবস্থাটি আকারেপ্রকারে বড় হওয়ার কারণে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা নিশ্চিতের রক্ষাকবচ হিসেবেই প্রতিনিধিত্বশীল সরকার ব্যবস্থায় নানা পরীক্ষানিরীক্ষা চলছে নিরন্তর। প্রতিনিধিত্বশীলতার অর্থই হচ্ছে রাষ্ট্র ব্যবস্থাটির উপরে সমগ্র জনগোষ্ঠীর প্রতিনিধিত্ব। আর এই প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত হওয়ার পথ প্রথমত নির্বাচন এবং পরবর্তীকালে গণতান্ত্রিক অধিকারগুলো রাষ্ট্র কর্তৃক নিশ্চিত করার মধ্যদিয়েই। জনগণের গণতন্ত্র এবং তাদের উন্নয়ন বাস্তবায়ন করার কারণেই এর যে পরীক্ষানিরীক্ষা চলছে তার বর্তমান পর্যায় এসে তা বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে নানা পরিবর্তন এসেছে। বিস্তারিত »

প্রতিবার ক্ষমতার পট পরিবর্তনে কোটিপতি বেড়েছে দুই-তিনগুণ

আমাদের বুধবার প্রতিবেদন

Last 4সরকার জটিল অর্থনৈতিক পরিভাষা ব্যবহার করে বোঝাতে চাচ্ছে যে, আমাদের অর্থনীতি শনৈঃ শনৈঃ উন্নতির শিখরে আরোহণ করছে। উন্নতির এই প্রচারণা অনেকটা সেই ‘কাজীর গরু কেতাবে আছে, গোয়ালে নাই’য়ের মতো অবস্থা। সরকার যা বলছে তার সাথে বাস্তব অবস্থার রয়েছে বিস্তর পার্থক্য। জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার বা দেশজ উৎপাদন বৃদ্ধির হার বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সমীক্ষা (২০১৫) মতে ৬.০৬ শতাংশ। জিডিপির আকার ১৫ লাখ ১৩ হাজার ৬ শত কোটি টাকা। মাথাপিছু জিডিপি বা মাথাপিছু আয় ৯৫ হাজার ৮ শত ৬৪ টাকা। সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রকাশিত এই সমীক্ষা মতে কৃষি খাত এবং ম্যানুফ্যাকচারিং খাতে জিডিপি বৃদ্ধির হার আগের বছরের তুলনায় কিছুটা কমেছে। প্রত্যক্ষ বৈদেশিক বিনিয়োগের হারে কোনো উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়নি। বিস্তারিত »

চীন :: পরাশক্তির বিবর্তন (পর্ব – ৩৬)

১৯৭১

আনু মুহাম্মদ

Last 5চীন নিয়ে লেখা সাম্প্রতিক গ্রন্থে মার্কিন প্রশাসনের দীর্ঘসময়ের কর্মকর্তা হেনরী কিসিঞ্জার ১৯৫৬ সালে মস্কোতে মাও সেতুং এর বক্তৃতার কথা উল্লেখ করেছেন। সেখানে মাও বলেছিলেন, ‘এখনও কেউ কেউ এরকম আছেন যারা চীন এবং সোভিয়েত ইউনিয়ন একসাথে দাঁড়াচ্ছে এরকম একটি অবস্থা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেন। তাঁরা বলেন চীনের উচিৎ একটি মধ্যপন্থা গ্রহণ করে সোভিয়েত ইউনিয়ন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সেতু হিসাবে কাজ করা। যদি চীন সোভিয়েত ইউনিয়ন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে দাঁড়ায় তার অবস্থান সুবিধাজনক ও স্বাধীন মনে হলেও আসলে চীন স্বাধীন থাকতে পারবে না। বিস্তারিত »

জলবায়ু রাজনীতি :: এখন যা ঘটছে (শেষ পর্ব)

হায়দার আকবর খান রনো

Last 6হাজার হাজার বছর ধরে মানুষ প্রকৃতিকে নিজ প্রয়োজনে ব্যবহার করেছে। কিন্তু মানুষও প্রকৃতির মধ্যে একটা ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক বজায় থেকেছে। শিল্প বিপ্লব ও পুজিবাদী যুগেই এই সম্পর্ক অন্য রূপ নিয়েছিল। আর বিংশ শতাব্দীর দ্বিতীয়ার্ধে পুজিবাদ প্রকৃতিকে নির্মমভাবে শোষণ করতে শুরু করে। তার ভয়াবহ বিপর্যয়কর পরিণতি এখন অনুভূত হচ্ছে।

কার্ল মার্কসের চোখেই প্রথম পুজিবাদের এই ধ্বংসাত্মক ভূমিকাটি চোখে পড়েছিল। অবশ্য মার্কসের আগেও অনেক দার্শনিক প্রকৃতিবাদী ছিলেন। তারা প্রকৃতির কোলে ফিরে যাবার আকুতি জানিয়েছেন। মার্কস কিন্তু সেভাবে বলেননি। তবে প্রকৃতি ও মানুষের মধ্যে দ্বান্দ্বিক সম্পর্কের দিকটি তিনিই প্রথম তুলে ধরেছিলেন। বিস্তারিত »

প্রতিপক্ষ নিশ্চিহ্নকরণই একমাত্র লক্ষ্য

শাহাদত হোসেন বাচ্চু

Coverগণতন্ত্র বিজয় দিবস না হত্যা দিবস এটিকে কেন্দ্র করে বিবাদমান রাজনীতি আবার গনগনে হয়ে ওঠার আশঙ্কায় জনগন রীতিমত আতঙ্কিত। স্মৃতি তো এখনও কাঁচা, ২০১৫ সালের ৫ জানুয়ারিকে কেন্দ্র করে দেশকে কিভাবে পেট্রোল বোমা ও বার্ণ ইউনিট, ক্রসফায়ার আর গুপ্তহত্যার জনপদে পরিনত করা হয়েছিল। তিনমাস ধরে জ্বলেপুড়ে খাক হয়েছে মানুষ, পোড়াগুলিবিদ্ধ লাশ ও সম্পদের ধ্বংস্তুপের ওপর ৯০ দিন পার করেছে জাতি। অচলাবস্থা থেকে ফিরে এলেও রাষ্ট্রের সর্বশরীরে দগদগে ক্ষতের দাগ এখনও স্পষ্ট। এই ক্ষত সম্পর্কে ক্ষমতাসীন বা বিরোধী দলকেউই সচেতন নয়।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে পাল্টাপাল্টি সমাবেশ অনুষ্ঠানের অনুমতি শেষতক কোন দলকে দেয়া হয়নি। বিস্তারিত »

গণতন্ত্র না উন্নয়ন

প্রকাশকাল ২৯ জুন ২০১৫

মীজানূর রহমান শেলী

Last 1আজকের দুনিয়ায় গণতন্ত্রের বিকল্প নেই বলে সবাই স্বীকার করেন। বিশেষ করে উনিশশো নব্বই এর দশকে সারা বিশ্বে গণতন্ত্রের জোয়ারে বহু দিনের একনায়কতন্ত্র প্রায় বিলুপ্ত হয়ে যায়। এই একই প্রক্রিয়ায় আমরা দেখি, পূর্ব ইউরোপে এবং সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নে যে সমাজতান্ত্রিক একনায়কতন্ত্র বলবৎ ছিল তার কার্যত বিলুপ্তি ঘটে। সেই অন্যান্য দেশে যেখানে আদর্শিক বা আদর্শবিহীন একনায়কতান্ত্রিক ব্যবস্থা প্রচলিত ছিল, সেখানেও গণতন্ত্রের জোয়ারে তা ভেসে যেতে বাধ্য হয়। এ অবস্থার সমান্তরালে আমরা আরেকটি জিনিস দেখি, দুনিয়াতে মুক্তবাজার তথা বাজারবান্ধব অর্থনীতির প্রাবল্য। একদিকে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা, অন্যদিকে মুক্তবাজারের মাধ্যমে ব্যক্তি উদ্যোগের বিকাশের ফলে দেশ ও জাতির দ্রুত সার্বিক উন্নয়ন। বিস্তারিত »