Home » রাজনীতি (page 16)

রাজনীতি

রাষ্ট্রপতি বলা যাবে না কিন্তু এরশাদ থাকবে সাথে

শাহাদত হোসেন বাচ্চু

Cover২০১৫ সালের ৩০ নভেম্বর সন্ধ্যে এই নিবন্ধটি লেখার সময় বঙ্গভবনের ওয়েবসাইটে (www.bangabhaban.gov.bd) সাবেক রাষ্ট্রপতিদের তালিকাক্রম ৯ ও ১০ নম্বরে জিয়াউর রহমান এবং ১৩ ও ১৪ নম্বরে হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের নাম দেখা যাচ্ছে। যাদের সাবেক রাষ্ট্রপতি হিসেবে আর কোন স্বীকৃতি দিতে রাজি নন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং এরকম সম্বোধন তিনি আদালত অবমাননা হিসেবে মনে করছেন। এর মধ্য দিয়ে দেড় দশককালের সামরিক ও কথিত গণতান্ত্রিক শাসনকে আদালতের রায়ের উল্লেখ করে অবৈধ আখ্যায়িত করছেন। যদিও দেড় দশককালের অবৈধ শাসনামলের বিরোধী দলের ভূমিকায় তার দল সরকার পরিচালনায় অংশ নিয়েছে এবং তিনি নিজে বিরোধী দলীয় নেতা হিসেবে জাতীয় সংসদে ভূমিকা পালন করেছেন। অবশ্য এই প্রসঙ্গে তিনি বলেননি সেটি বৈধ কি অবৈধ ছিল।

গত ২৬ নভেম্বর গণভবনে একটি সভায় প্রধানমন্ত্রী মন্তব্য করেছেন, জিয়াউর রহমান ও এরশাদকে সাবেক রাষ্ট্রপতি বলা যাবে না। বিস্তারিত »

লিবিয়া :: যুদ্ধ যেখানে শুধুই তেলের জন্য

নিকোলাস লিন, ফরেইন পলিসি ম্যাগাজিন

অনুবাদ : মোহাম্মদ হাসান শরীফ

Last-1লিবিয়ার জীবনরক্ত হলো তেল। দেশটির সত্যিকার অর্থে অন্য কোনো শিল্প নেই, চাকরির আর তেমন উৎস নেই। তেলই সেখানকার একমাত্র ব্যবসা। বিশ্বব্যাংকের হিসাব মতে, সরকারি বাজেটের ৯৫ শতাংশের বেশি আসে তেল রাজস্ব থেকে। আর প্রায় ৮০ ভাগ লিবীয় সরকারি বেতনের আওতায় থাকায় যদি বলা হয় যে তেলই তাদের খাওয়াচ্ছেপরাচ্ছে, তবে তা অতিরঞ্জিত কিছু বলা হয় না। অন্য কোনো দেশই একটি মাত্র সম্পদের ওপর এমনভাবে নির্ভরশীল নয়। লিবিয়ার প্রায় পুরোটাই মরুভূমি। আবাদযোগ্য জমির মারাত্মক অভাবের কারণে তারা নিজেদের খাবার নিজেরা উৎপাদন করতে পারে না। ফলে তেল রাজস্ব না থাকলে লিবিয়া নামের দেশটির অস্তিত্বই প্রশ্নের মুখে পড়ে যায়। তেল রফতানি না হলে টাকা আসবে না, টাকা না থাকলে খাবারও জুটবে না। বিস্তারিত »

উদ্বাস্তু :: ইউরোপে উগ্র ডানপন্থার উত্থান

অ্যানেলা সাফদার, আল জাজিরা

অনুবাদ : আসিফ হাসান

Last-2প্যারিসে অন্তত ১২৯টি প্রাণ ধ্বংসকারী হামলার দিন কয়েকের মধ্যেই ইউরোপের বিপুলসংখ্যক রাজনীতিবিদ এটাকে মুসলিমসংখ্যাগরিষ্ঠ দেশগুলোর যুদ্ধ ও নির্যাতন থেকে পালিয়ে আসা মানুষজনকে আর না গ্রহণ করার ব্যাপারে তাদের বক্তব্য আরো সোচ্চার করার সুযোগ হিসেবে কাজে লাগাতে শুরু করেছেন। প্যারিসে হামলাকারীদের একজন সিরীয় পাসপোর্ট বহন করছিল, যদিও হামলার সাথে তার সম্পৃক্ততা থাকাটা প্রমাণ হয়নি, এমন প্রতিবেদন প্রকাশের পর তাদের জোরালো হুঁশিয়ারি উদ্বাস্তুদের দুর্দশার আরো অবনতি ঘটবে বলেই আশঙ্কা বেড়েছে। বিস্তারিত »

তাজউদ্দীন আহমদের রাজনৈতিক জীবন (পর্ব – ২)

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী

Last-3রাজনৈতিক কারণে ব্যস্ততার দরুন বিএ অনার্স পরীক্ষা দিতে পারেন নি; শিক্ষকতার কাজ নিয়েছেন শ্রীপুর স্কুলে। সে স্কুলের অবস্থা খুবই খুবই সঙ্গীন। বেতন একশ’, তাও নিয়মিত পাবেন কিনা সন্দেহ। প্রধান শিক্ষক তহবিলের নয়ছয় করছেন বলে অভিযোগ। এরই মধ্যে তাজউদ্দীন চেষ্টা করছেন স্কুলটিকে দাঁড় করাতে। নিয়মিত শিক্ষা দানের পাশাপাশি খেলাধূলা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, গ্রান্ট ইন এইডের জন্য দরখাস্ত, সব চলছে। উদ্যোগটা তাঁরই। কিন্তু একটা সময় এলো যখন তাঁকে বিদায় নিতে হচ্ছে, বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিরে গিয়ে পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি গ্রহণের প্রয়োজনে। তাঁর কন্যা শারমিন আহমদ তাজউদ্দীন আহমদ : নেতা ও পিতা নামে যে বইটি লিখেছেন তা থেকে আভাস পাওয়া যায় যে, তাঁর এই ছাত্রজীবনে প্রত্যাবর্তনের সঙ্গে রাজনীতির কাজকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ইচ্ছা জড়িত ছিল। প্রাদেশিক ব্যবস্থাপক পরিষদের নির্বাচন আসছে, তাতে তিনি প্রার্থী হবেন’ স্নাতক ডিগ্রি না থাকলে পাছে প্রার্থিতা অগ্রাহ্য হয় এই শঙ্কাটিই ছিল তাঁর জন্য মুখ্য বিবেচনা। বিস্তারিত »

চীন :: পরাশক্তির বিবর্তন (পর্ব – ৩৪)

যুক্তরাষ্ট্রের সাথে সম্পর্কের প্রেক্ষাপট

আনু মুহাম্মদ

Last-4মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে চীনের যোগাযোগ এবং রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের ক্ষেত্র তৈরি হয় ৬০ দশকের শেষ দিকে। ৬০ দশকের শুরুতে সীমান্ত বিরোধ নিয়ে চীন ভারতের সাথে যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে। বিরোধপূর্ণ অঞ্চল দখল করেও চীন নিজে থেকে যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করে। কিন্তু বিরোধের সমাপ্তি হয়নি। সোভিয়েত ইউনিয়নের সাথে মতাদর্শিক বিরোধের সাথে সীমান্ত বিরোধ যুক্ত হয় ৬০ দশকের শেষে, এই বিরোধও একপর্যায়ে যুদ্ধের পরিস্থিতি তৈরি করে। সীমান্তের কোথাও কোথাও উত্তেজনা দেখা দেয়, দুই দেশেরই সৈন্য তৎপরতা দেখা যায়। এই সময়ে এশিয়ার চীন সংলগ্ন অঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্র তার প্রভাব বলয় বৃদ্ধিতে মরিয়া। বিস্তারিত »

প্রথম স্বাধীনতা যুদ্ধ ১৮৫৭ :: পুনঃঅনুসন্ধান (দ্বিতীয় পর্ব)

হায়দার আকবর খান রনো

Last-5শোনা যায়, এই বিদ্রোহের সূচনা হয়েছিল এক ধরনের ধর্মীয় অনুভূতি থেকে। ইংরেজ শাসকরা এনফিল্ড রাইফেল নামে এক ধরনের রাইফেলের প্রচলন করে, যার কার্তুজ দাত দিয়ে ছিড়ে বন্দুকে পুরতে হতো। রটনা হয়েছিল যে, ঐ কার্তুজে শুকর ও গরুর চর্বি মেশানো আছে। এতে হিন্দু ও মুসলমান উভয় সম্পদায়ের সিপাহীরা ক্ষীপ্ত হয়ে ওঠেন। এবং এর থেকেই বিদ্রোহের সূত্রপাত। বিদ্রোহের তাৎক্ষণিক সূত্রপাতের জন্য হয়তো এটাকে কারণ হিসেবে চিহিৃত করা যেতে পারে। কিন্তু বিদ্রোহের মূল কারণ ছিল আরও গভীরে। আগেই বলেছি সিপাহীদের মধ্যে স্বাধীনতা স্পৃহা ও বৃটিশ বিরোধী ঘৃণা কাজ করছিল। সিপাহী বিদ্রোহ সর্বভারতীয় জাতীয় চরিত্র লাভ করেছিল। সিপাহী বিদ্রোহের গুরুত্বপূর্ণ ঘটনাগুলি উল্লেখ করা যাক।

১১ মে ১৮৫৭ মিরাট সেনানিবাসের ভারতীয় সৈন্যরা বৃটিশ অফিসারদের হত্যা করে দিল্লীর দিকে রওনা হন। দিল্লী গ্যারিসনের ভারতীয় সৈন্যরা তাদের সঙ্গে যোগদান করেন। দিল্লী বিদ্রোহীদের দখলে চলে আসে। বিস্তারিত »

প্যারিস হামলা :: অসহায় শরণার্থীরাই ক্ষতিগ্রস্ত

আমীর খসরু

Dis-3দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধোত্তর সময়ে চলতি বছরের মতো এতো বিশাল সংখ্যায় মানুষ আগে আর কখনোই শরণার্থী হয়নি, ঘটেনি উদ্বাস্তু হওয়ার ঘটনা। একযোগে এতো দেশে ছোট কিংবা বড় যুদ্ধের ঘটনাই আর এক সাথে কোনোদিন দেখা যায়নি। জর্ডানের বাদশা দ্বিতীয় আবদুল্লাহ তো বলেই দিয়েছেন, মানব জাতি তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ প্রত্যক্ষ করছে। এই যুদ্ধ কেন হচ্ছে তার ব্যাখ্যা অবশ্য এর সাথে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িতরা তাদের নিজ নিজ অবস্থান থেকে দিচ্ছেন। কেউ বলছেন, তারা যুদ্ধ আর আক্রমণ করছে কথিত ‘আদর্শ’ প্রতিষ্ঠার জন্য। আবার ওই কথিত আদর্শের বিপরীতে অন্যরা যুদ্ধে লিপ্ত। তবে সবচেয়ে বড় বাস্তব ঘটনাটি যা ঘটছে তাহচ্ছে তেল ও অস্ত্র বিক্রির বিশাল বাজার সৃষ্টি হয়েছে। তেলের জন্য যুদ্ধ সেই চল্লিশের দশক থেকে এখন পর্যন্ত পুরোদমে চলছে, বরং বেশি মাত্রায়ই। এ্যন্থনী স্যামসন তার ‘দ্য সেভেন সিস্টারস : দ্য গ্রেট অয়েল কোম্পানিজ এ্যন্ড দ্য ওয়ার্ড দে শেফড’ গ্রন্থে (প্রথম প্রকাশ ১৯৭৫ সাল) তেল কোম্পানী এবং রাষ্ট্রসমূহ কিভাবে তেলের জন্য লড়াই বাধিয়ে দেয় আর যুদ্ধ সৃষ্টি করে, নানা কৌশলের আশ্রয় নেয় তার বিস্তারিত বিবরণ দিয়েছেন । বিস্তারিত »