Home » রাজনীতি (page 39)

রাজনীতি

আগে নির্বাচন নাকি খালেদার বিচার?

আমাদের বুধবার প্রতিবেদন

Dis 2আমাদের নেতানেত্রীরা প্রতিবছর সৌদী আরবে ওমরাহ্‌ পালন করতে গিয়ে থাকেন। রাজনৈতিক নেতাদের বাইরে সম্পন্ন অনেক মানুষও ধর্মীয় এই আচরনটি পালন করে থাকেন। গত কয়েক দশকে এটি একটি রেওয়াজে পরিনত হয়েছে। ওমরাহ্‌ পালনের ধর্মীয় ও রাজনৈতিক দ্বিবিধ কারন থাকে। মুসলিম দেশ হিসেবে সৌদী রাজতন্ত্রের একটি প্রবল প্রভাব রয়েছে অপরাপর মুসলিম দেশের ওপর এবং বাংলাদেশের রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম হওয়ায় মুসলিম উম্মাহ্র স্বার্থের বিষয়টি আমাদের রাজনৈতিক নেতানেত্রীদের কাছে অতীব গুরুত্বপূর্ণ। বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া রাজকীয় মেহমান হিসেবে প্রায় প্রতি বছরই সৌদী আরবে ওমরাহ্‌ পালন করতে যান। সাম্প্রতিককালে তাঁর জন্য এটি আরও গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছিল এ কারনে যে, তারেক জিয়াও এ সময়ে ওমরাহ্‌ পালনে সৌদীতে আসেন। বিস্তারিত »

রাজনীতির নোংরা খেলা :: জোর করে দলবদল

আমীর খসরু

Dis 1বর্তমান সরকার ক্ষমতাসীন হওয়ার পর থেকেই বিরোধী দল, মত, পক্ষ নিশ্চিহ্ন করার যাবতীয় উদ্যোগ নেয়। এবারে এই উদ্যোগে প্রথম থেকেই ক্ষমতাসীনরা যে যথেষ্ট সতর্কতা অবলম্বন এবং হিসাবনিকাশ করেছে, তা স্পষ্ট। আর অতীতের ঘটনার পুনরাবৃত্তি একই ধারায় ও পদ্ধতিতে পুনর্বার সম্পন্ন করার অনেক বিপদ আছে এই বিষয়টি তাদের মাথায় রয়েছে। ক্ষমতাসীনরা সে জন্যই অতীতের হঠাৎ করে নেয়া সিদ্ধান্ত যা বাকশাল গঠনের ক্ষেত্রে করা হয়েছিল, সে পথে বা পদ্ধতিতে তারা সরাসরি যায়নি। এবারে সম্পূর্ন ভিন্ন পথ ও পদ্ধতি অর্থাৎ পুরো কর্মপরিকল্পনাই ভিন্নভাবে গ্রহণ করা হয়েছে এবং কিছুটা সময় দেয়া হয়েছে তা সম্পন্ন করার জন্য। বাকশাল গঠনের ক্ষেত্রে যে তাড়াহুড়ো ছিল এক্ষেত্রে তা করা হয়নি, আগেরবারের বিপদআপদ চিন্তা করে। সরকার ক্ষমতায় আসার পরে চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি, দখলসহ প্রথম দফার কাজটি সম্পন্ন করা হয় দলীয় লোকজনের মাধ্যমে। বিস্তারিত »

মুজিব বাহিনী :: মুক্তিযুদ্ধের রহস্যময় এক অকথিত অধ্যায়

শাহাদত হোসেন বাচ্চু

Bishes Nibondhoএকাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশ লিবারেশন ফোর্স (বিএলএফ), যা মুজিব বাহিনী নামে সমধিক পরিচিতআমাদের মুক্তিযুদ্ধে রহস্যময় এক অকথিত অধ্যায়। ইতিহাসের একটি বিশেষ সময়ে কেন, কি প্রেক্ষাপটে এই ‘গোপন’ বাহিনী গড়ে উঠেছিল, মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীন বাংলাদেশের রাজনীতি ও সমাজসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে কি আকারে প্রভাব বিস্তার করেছিল, প্রায় অর্ধশত বছর পরে এখনও অনেকটাই রহস্যময় এবং প্যান্ডোরার বাক্সে তালাচাবি দেয়া। মাঝেমধ্যে গণমাধ্যম, জাতীয় সংসদসহ নানা টুকরোটাকরা আলোচনায় এ নিয়ে বিতর্কউত্তেজনা সৃষ্টি হলেও এই বাহিনীর ভূমিকা জনগনের কাছে এখনও রহস্যাবৃত। অতি সম্প্রতি কিছু লেখাজোখায় প্রসঙ্গটি উঠে আসতে শুরু করেছে। মুক্তিযুদ্ধের সময়ে ভারতীয় প্রশ্রয়ে এ বাহিনী এতটাই ক্ষমতাধর হয়ে উঠেছিল যে, মুজিবনগর সরকারকে তারা প্রকাশ্যে অবজ্ঞা ও অগ্রাহ্য করতে পেরেছিল। বিস্তারিত »

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত কি বধ্যভূমি

Last 2(কুড়িগ্রাম সীমান্তে ২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বিএসএফের গুলিতে নিহত বাংলাদেশী কিশোরী ফেলানি খাতুন হত্যা মামলায় অভিযুক্ত বিএসএফ সদস্যকে পুনরায় নির্দোষ বলে ঘোষণা দিয়েছে ওই বাহিনীর নিজস্ব একটি আদালত। ২০১৩ সালে সেনাবাহিনীর কোর্ট মার্শালের মতোই বিএসএফের নিজস্ব আদালতে কঠোর গোপনীয়তা এবং নিরাপত্তার মধ্যে প্রথম দফার ওই বিচার কাজ চলে। ওই রায়ের ব্যাপারে ফেলানির বাবার আপত্তির কারণে ওই একই ধরনের আদালতে পুনরায় বিচার কাজ হয়। ২০১৫’র জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহে ওই আদালতেও প্রথমবারের মতো পুনরায় বিএসএফ সদস্যকে নির্দোষ বলে ঘোষণা করা হয়। ২০১১তে ঘটে যাওয়া ওই মর্মান্তিক ঘটনার পর বাংলাদেশ, ভারত এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এবং সংগঠনের পক্ষ থেকে তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করা হয়েছিল। এসব রায়ের পরে ফেলানির বাবা, যিনি এই হত্যাকাণ্ডের প্রত্যক্ষ সাক্ষী, হতাশা এবং ক্ষোভ প্রকাশ করেন। পুনর্বার এই রায়ের পরে প্রশ্ন তাহলে কাটাতারের বেড়ার উপরে পঞ্চদশী ফেলানিকে হত্যা করলো কে এবং হত্যাকাণ্ডের বিচার কি আর কোনোদিন হবে না? এই প্রশ্নের কোনো মীমাংসা পাওয়া গেল না। ফেলানি নিহত হওয়ার ঘটনাটি আন্তর্জাতিক দুনিয়ায় এমনই প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করেছিল, যে কারণে মার্কিন প্রভাবশালী সাময়িকী ফরেন পলিসি ২০১১’র জুলাইআগস্ট সংখ্যায় এক অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ করে। স্কট কার্নি, জ্যাসন মিকলেইন ও ক্রিসটেইন হোলসারের সেই প্রতিবেদনটির বাংলা ভাষান্তর প্রকাশ করা হলো। সম্পাদক) বিস্তারিত »

গরু পাচার বন্ধে আবারো ভারতের কঠোরতা

আমাদের বুধবার প্রতিবেদন

Dis 4বাংলাদেশে গরু পাচার বন্ধে নতুন উদ্যোগে নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বাধীন ভারত সরকার সীমান্তজুড়ে ৩০ হাজার সীমান্তরক্ষী (বিএসএফ) মোতায়েন করেছে এবং তারা পাহারা দিচ্ছে কঠোরভাবে। একটা গরুও তারা বাংলাদেশে আসতে দেবে না। লক্ষ্য : বাংলাদেশের মানুষ যাতে গরুর গোশত খেতে না পায়। বিএসএফ সদস্যরা এখন অস্ত্র ছাড়াও লাঠি, দড়ি নিয়ে ধান ক্ষেত, পাট ক্ষেত দিয়ে ছুটছে, কখনো পুকুরে সাঁতার কাটছে।

বাংলাদেশে ভারতীয় গরুর একচেটিয়া বাজার দীর্ঘদিনের। আনুষ্ঠানিক রফতানি বন্ধ থাকায় চোরাচালান ছিল একমাত্র মাধ্যম। হিন্দুস্তান টাইমসের হিসাব মতে সাম্প্রতিক কালে বছরে প্রায় ২০ লাখ গরু ভারত থেকে বাংলাদেশে আসে। বিস্তারিত »

চীন যেভাবে বাংলাদেশ থেকে রেল করিডোর চায়

আমাদের বুধবার প্রতিবেদন

Dis 3প্রাচীন বাণিজ্যপথ সিল্ক রুটকে আবার পুনরুজ্জীবিত করার চেষ্টায় কুনমিং থেকে কলকাতা পর্যন্ত হাইস্পিড রেল নেটওয়ার্ক গড়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছে চীন। এ রেলপথটি যাবে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে দিয়ে। চীনের কুনমিং শহরে সদ্যসমাপ্ত গ্রেটার মেকং সাবরিজিয়ন (জিএমএস) বৈঠকেই চীনের তরফে এই প্রস্তাব পেশ করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, চীনের কুনমিং থেকে ভারতের কলকাতা পর্যন্ত প্রাচীন একটি বাণিজ্যিক পথকে নতুন করে আবার জিইয়ে তোলার এই প্রয়াস অবশ্য নতুন নয়। দু’দেশের সরকারি সমর্থনে ও বেসরকারি উদ্যোগে অর্থাৎ কেটুকে (কলকাতা টু কুনমিং) ফোরাম নামে একটি ইনিশিয়েটিভ ঠিক এই লক্ষ্য নিয়েই কাজ করছে গত বেশ কয়েক বছর ধরে। বিস্তারিত »

‘শাসন করা তারই সাজে সোহাগ করে যে গো’

এম. জাকির হোসেন খান

Dis 2বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাব অনুযায়ী, প্রবাসী বাংলাদেশিরা গত ২০১৪১৫ অর্থবছরে দেশে প্রায় এক হাজার ৫৩০ কোটি মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন যা ২০১৩১৪ অর্থবছরের চেয়ে ১০৮ কোটি মার্কিন ডলার বা ৭ দশমিক ৬০ শতাংশ বেশি। বলা হচ্ছে, এ পরিমাণ রেমিট্যান্স এ যাবৎকালের মধ্যে সর্বোচ্চ। এর আগে বার্ষিক সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স ১ হাজার ৪৪৬ মার্কিন ডলার ছিল ২০১২১৩ অর্থবছরে। অতীতের মতো বর্তমানেও ক্ষমতাসীনরা এ অর্জনকে তাদের অন্যতম সাফল্য বলে কোরাস গাইতে শুরু করেছে। এরই মধ্যে বিশ্ব ব্যাংক তাদের সর্বশেষ প্রতিবেদনে বাংলাদেশকে নিম্ন মধ্য আয়ের দেশ বলে ঘোষনা দেয়ার পরই সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে ইতিমধ্যে ঘোষণা করছেন যে, আগামী ৩ বছরের মধ্যেই বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে। বিস্তারিত »