Home » প্রচ্ছদ কথা (page 24)

প্রচ্ছদ কথা

সরকার এবং বিএনপি সমঝোতা!

আমীর খসরু

coverপুরো এক বছর নিস্তব্ধ, নিস্তরঙ্গ থাকার পরে গত ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহ থেকে এই মার্চ পর্যন্ত আবার ব্যাপকমাত্রায় সরব, উত্তপ্ত ও বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠে রাজনৈতিক অঙ্গন। বলা যায়, এক বছর রাজপথে বা কোথায়ও বিরোধী পক্ষের তেমন কোনো কর্মকাণ্ড না থাকায় অথবা থাকতে না দেয়ায় ক্ষমতাসীনরা দেশের স্থিতিশীলতা স্থায়ীভাবে ফিরে এসেছে বলে প্রচারপ্রচারণা চালাতে থাকে। এমন অবস্থার মধ্যেও বর্তমান সরকারের সব কার্যক্রম বিরোধী হটাও ও ঠেকাওএর মূল লক্ষ্যকে সামনে নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে এটা তাই প্রমাণ করে। বিস্তারিত »

সিটি নির্বাচন ॥ দু’পক্ষই কি চাপা দিতে চায় সবকিছু

শাহাদত হোসেন বাচ্চু

এক.

coverহত্যাকাণ্ডের থেকে অনেক বেশি ভয়াবহ অপরাধ গুমের বিষয়টি অনেকটাই চাপা পড়ে গেছে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ডামাডোলে। তিনশ’র ওপর পরিবার এখন আর গুমের ঘটনায় বিচার পর্যন্ত চাইছেন না। পরিবারের সদস্যরা শুধু জানতে চাচ্ছেন, বেঁচে আছে বা লাশটি কোথায় আছে। ২০১৪ সালের ৩০ আগষ্ট মৌলিক অধিকার রক্ষা কমিটির ব্যানারে দেশের প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্বজনরা আর্তি জানিয়েছিলেন, বাবাস্বামী অথবা সন্তানকে মেরে ফেলা হলে যেন এইটুকু জানতে পারেন। তারা শুধু মৃত আত্মার জন্য দোয়া করতে চান, শান্তি কামনা করতে চান। শুধু এইটুকুর জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে ছিল তাদের নিবেদন। বিস্তারিত »

বিএনপি :: হ্যাঙ না রি-স্টার্ট

শাহাদত হোসেন বাচ্চু

এক.

COVERশেষ পর্যন্ত নানা কিছুর পরে বিএনপির নেতৃত্ব একটি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে, নিজেদের জন্য সামগ্রিক পরিস্থিতি বেশ ঘোলা করেই। সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশগ্রহণের সিদ্ধান্ত শেষ পর্যন্ত তাদের জন্য কতোটা ইতিবাচক হবে বা তারা একে ইতিবাচক দিকে নিয়ে যেতে পারবে তা এখনই বলা সম্ভব নয়। তবে নতুন বছরের শুরুতে আন্দোলনের নামে তাদের কর্মকান্ড এবং সরকারের আন্দোলন প্রতিরোধকোনটিই জনগণকে মূহুর্তের জন্যও স্বস্তি দেয়নি। অগনন পোড়া ও গুলিবিদ্ধ লাশের ওপর দাঁড়িয়ে বিএনপি জোট সিটি নির্বাচনে অংশ নেয়ার ঘোষণা দিয়ে কি অর্জন করতে চাইছে, বোধগম্য নয় সেটি। তারা মানছেন, এ নির্বাচন তামাশার, এটি জেনেও মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করছেন, ‘তামাশা’ তৈরীতে সহায়তার জন্য! বিস্তারিত »

কোথায় স্বস্তি কোথায় নিরাপত্তা – এ সব কিসের আলামত

হায়দার আকবর খান রনো

coverগত দুই মাস ধরে দেশে যা চলছে তাকে আর যাই হোক, কেউই স্বাভাবিক পরিস্থিতি বলবেন না। সরকার বার বার স্বাভাবিক হয়ে যাবার কথা শোনালেও সরকারেরই অর্থমন্ত্রী জানিয়েছেন যে, দেশের পরিস্থিতি ভয়ঙ্কর খারাপ। ব্যবসায়ীদের সর্বোচ্চ সংস্থা এফবিসিসিআই কিছুদিন পরপরই বিরাট অঙ্কের ক্ষতির হিসাব তুলে ধরছে। তার মানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক নয়। এখনো পেট্রোল বোমায় মানুষ মরছে। অগ্নিদগ্ধ মানুষের যন্ত্রণা এবং স্বজনদের কান্না এখনো শোনা যায়। অন্যদিকে ক্রসফায়ার, বন্দুকযুদ্ধ ও গণপিটুনির নামে মিথ্যাচার ও রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসে গণতন্ত্রের অবশিষ্টটুকুও থাকছে না। সর্বশেষ সালাউদ্দিন আহমদের নিখোজের ঘটনা এক অশনি সঙ্কেত দিয়ে গেল। দেশ এক চরম কর্তৃত্ববাদী স্বৈরশাসনের আওতায় চলে গেছে।

যখন কোন জনবিচ্ছিন্ন অনির্বাচিত সরকার জোর করে ক্ষমতায় থাকতে চায়, তখন তাকে কর্তৃত্ববাদী হতেই হয় যার প্রকাশ ঘটে নানা ধরনের ফ্যাসিবাদী প্রবণতায়। বিস্তারিত »

‘নাই’ হয়ে যাওয়ার সংস্কৃতি

আমীর খসরু

coverক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং স্থানীয় সরকার মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বর্তমান ক্ষমতাসীনদের ভবিষ্যত কার্যক্রম, ভবিষ্যত কর্মপরিকল্পনা ও এর বাস্তবায়ন পদ্ধতি সম্পর্কে খোলামেলাই জানিয়ে দিয়েছেন গত ১৪ মার্চ এক আলোচনা অনুষ্ঠানে। ধন্যবাদ এই ক্ষমতাধর নেতাকে এ কারণে যে, তিনি তার সরকারের ও দলের অন্যান্য নেতাদের মতো কোনো কিছুই রাখঢাক না করে, না লুকিয়েছাপিয়ে এ সম্পর্কে সরাসরি কথা বলেছেন। ওই আলোচনা অনুষ্ঠানে সৈয়দ আশরাফ বলেছেন, ‘আগামীতেও একই পদ্ধতিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে’। তিনি পুরো বক্তৃতায় যা বলেছেন তার সহজসরল অর্থ হচ্ছে ৫ জানুয়ারিতে যে সাংবিধানিক ব্যবস্থার অধীনে এবং যেভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে, ভবিষ্যতের নির্বাচনও সেভাবেই অনুষ্ঠিত হবে। বিস্তারিত »

সংলাপের কথা বলে ইচ্ছাকৃত সময়ক্ষেপণ

আমীর খসরু

COVERবাংলাদেশের রাজনীতি এবং রাজনৈতিক নেতৃত্বের শাসনের মস্তবড় একটি দুর্বলতার দিক হচ্ছে ক্ষমতাসীনরা সব সময়ই নির্দিষ্ট মেয়াদ শেষে ক্ষমতার সুষ্ঠু এবং স্বাভাবিক পালাবদলের ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করে। এই প্রতিবন্ধকতা বা বাধা সৃষ্টির মূল কারণ, শাসনকালে তারা জনগণকে দেয়া নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি পালন করে না এবং এ কারণেই জনগণের প্রতি তাদের তীব্র অবিশ্বাস ও নিজেদের আস্থাহীনতায় ভোগে। প্রতিনিধিত্বশীল শাসন ব্যবস্থার উদ্যোক্তা রাষ্ট্র বিজ্ঞানীরা ওই ব্যবস্থা আসলে কতোটুকু প্রতিনিধিত্বশীল হিসেবে কার্যকর হবে তা নিয়ে কমবেশি সব সময়ই সংশয় প্রকাশ করেছেন। আর একই ভাবে প্রায়োগিক ক্ষেত্রে এই ব্যবস্থার কি কি দুর্বলতার দিকগুলো থাকতে পারে, সে বিষয়েও সব সময় সতর্ক ছিলেন। কালোক্রমে দেখা গেছে, প্রায়োগিক ক্ষেত্রে দুর্বল গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থাগুলোতে প্রতিনিধিত্বশীল শাসন আসলে সত্যিকার অর্থে জনপ্রতিনিধিত্বশীল শাসনকে নিশ্চিত করে না। বিস্তারিত »

খালেদা জিয়ার সঙ্কটের চার কারণ

শাহাদত হোসেন বাচ্চু

cover২০০১০৬ মেয়াদে প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে খালেদা জিয়া যে অসহায়ত্ব বরণ করেছিলেন তা অব্যাহত থেকেই গেছে। তখন তার অসহায়ত্বের কারণ ছিল তিনটি। এক, তার পুত্র তারেক জিয়ার সর্বগ্রাসী দাপট ও ক্ষমতা কাঠামো নিয়ন্ত্রণ; দুই, দলীয় শীর্ষ নেতৃত্বের কোন্দল ও অনৈক্য; তিন, জামায়াতের ফাঁদ, ২০০৭ সালের ১/১১ এর পরে এর সাথে যুক্ত হয় চতুর্থটি সরকারের সর্বগ্রাসী চাপ। বিএনপির একক ও অসাধারণ ব্যক্তিত্বসম্পন্ন নেতার এ অসহায়ত্ব ও সিদ্ধান্তহীনতার ক্ষেত্রে প্রথম ও তৃতীয় দুটি কারণ সবচেয়ে বেশি প্রভাবিত করেছে। অন্যটি তাকে নির্ভর করে তুলেছে কতিপয় সাবেক আমলা ও অরাজনৈতিক কর্মকর্তাদের ওপর। বিস্তারিত »