Home » অর্থনীতি (page 72)

অর্থনীতি

দ্রব্যমূল্য – এক সপ্তাহেই চালের দাম বেড়েছে ৪ টাকা

আমাদের বুধবার প্রতিবেদক

unstable-economy-1-মাত্র এক সপ্তাহের ব্যবধানে খুচরা বাজারে চালের দাম মানভেদে কেজিপ্রতি ২৪ টাকা বেড়েছে। এক মাসে বেড়েছে ৭ টাকা। ভোজ্যতেল (বোতলজাত ও খোলা) এক সপ্তাহে লিটারপ্রতি বেড়েছে ৫ টাকা। দুই মাস আগে এটি বিক্রি হয়েছে ১০ টাকা কমে। প্রতি কেজি সয়াবিন তেল (লুজ) বিক্রি হচ্ছে ১৩০ থেকে ১৩৫ টাকায়। বোতলজাত প্রতি লিটার সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১৩৫ থেকে ১৪০ টাকা। ৫ লিটারের বোতল বিক্রি হচ্ছে ৬৫০৬৭৫ টাকা পর্যন্ত। সরকার মূল্যস্ফীতি কমেছে বলে দাবি করলেও বাজার বলছে ভিন্ন কথা। বর্তমান সরকারের চার বছরে দ্রব্যমূল্য দ্বিগুন থেকে চারগুন হয়েছে। সে তুলনায় বাড়েনি সাধারণ মানুষের আয়। বরং আয়ের তুলনায় ব্যয় বেড়ে যাওয়ায় তাদের জীবনযাত্রার মান কমছে। বিস্তারিত »

পুঁজিবাদের একটি ভুতুরে গল্প (দ্বিতীয় কিস্তি)

কর্পোরেট সংবাদ মাধ্যম, ড্যাম নির্মাণ আর দমনের কলাকৌশল

অরুন্ধতী রায়

অনুবাদ: মোহাম্মদ হাসান শরীফ

arundhati-2ব্যাপক বিদ্রোহ ও যুদ্ধের কারণেই কেবল আমরা মধ্য ভারতের প্রতিবেশগত ও সামাজিক পুনঃগঠনের বিষয়টি জানতে পারছি। সরকার কোনো তথ্য দেয়নি। সমঝোতা স্মারকগুলোর সবই গোপন রাখা হয়েছে। মিডিয়ার কিছু কিছু অংশ মধ্য ভারতে যা কিছু ঘটছে, সে স¤পর্কে লোকজনকে অবগত করছে। তবে ভারতীয় গণমাধ্যমের বেশির ভাগই এ কারণে দুর্বল যে, এর আয়ের প্রধান অংশটি আসে করপোরেট বিজ্ঞাপন থেকে। এটাও যদি যথেষ্ট খারাপ বিবেচিত না হয়ে থাকে, তবে তার চেয়েও কঠিন খবর হলো মিডিয়া ও বৃহৎ ব্যবসায়ের মধ্যকার রেখাটি বিপজ্জনকভাবে অস্পষ্ট হতে শুরু করেছে। আমরা দেখেছি, আরআইএল প্রকৃতপক্ষে ২৭টি টিভি চ্যানেলের মালিক। তবে বিপরীতটাও সত্য। বিস্তারিত »

তেল-গ্যাস লুট দেশে দেশে

তেলের মওজুদ, ক্ষমতা আর বৈশ্বিক রাজনীতি

ফারুক চৌধুরী

coal power-1তেলগ্যাস লুটের বিষয়টি আলোচনার ক্ষেত্রে খনিজ সামগ্রীর প্রসঙ্গ উত্থাপনের কারণ হচ্ছে (), একটি দেশের বা সমাজের প্রতি দিনের জীবনযাত্রায়, (), অর্থনীতিতে ও () মুনাফা অর্জনের ক্ষেত্রে এ সবের প্রয়োজন ও গুরুত্ব। তেল, গ্যাসসহ নানা ধরনের জ্বালানির প্রয়োজন ও গুরুত্ব বুঝতে পারা যাবে এ সব খনিজ সামগ্রীর গুরুত্ব ও প্রয়োজন খেয়াল করলে।

এ সব খনিজ সামগ্রীর প্রয়োজন কতটা, তা একটি তথ্য উল্লেখ করলে বুঝতে সুবিধা হয়। একটি ক্ষমতাধর দেশ সাম্প্রতিককালে বিভিন্ন খনিজ দ্রব্যের মজুদ গড়ে তুলছে। কারণ, দেশটিতে এ সব খনিজ দ্রব্যের খনি নেই, এ মজুদের মধ্যে রয়েছে বক্সাইট : এক কোটি মেট্রিক টনের বেশি, ম্যাঙ্গানিজ : ১৭ লাখ মেট্রিক টন, ক্রোমিয়াম ১৪ লাখ মেট্রিক টন, টিন : প্রায় ৬০ হাজার মেট্রিক টন, কোবাল্টি : প্রায় দুশ মেট্রিক টন, ট্যান্টালাম : ৬শ টনের বেশি, প্যালাডিয়াম : ১২ লাখ ট্রয় আউন্সের বেশি, প্লাটিনাম : প্রায় পাঁচ হাজার কিলোগ্রাম, ইরিডিয়াম : প্রায় আট বা কিলোগ্রাম। বিস্তারিত »

পুঁজিবাদের একটি ভুতুরে গল্প – ১

অরুন্ধতী রায়

অনুবাদ: মোহাম্মদ হাসান শরীফ

arundhati-2এটা বাড়ি না বাসা? নতুন ভারতের মন্দির না কি এর প্রেতাত্মাদের গুদামঘর? মুম্বাইয়ের অ্যালতামন্ট রোডে অন্টিলায় পৌঁছানোর পর চুইয়ে পড়া রহস্য আর চাপা আতঙ্কে কোনো কিছুই আর আগের মতো ছিল না। ‘এই আমাদের স্থান,’ যে বন্ধুটি আমাকে সেখানে নিয়ে গিয়েছিল সে বলল, ‘আমাদের নতুন শাসকের প্রতি শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করো।’

অন্টিলা, ভারতের সবচেয়ে ধনী মানুষ মুকেশ আম্বানির বাড়ি। এযাবতকালের সবচেয়ে দামি বাড়িটি সম্পর্কে আমি অনেক কিছু পড়েছি : ২৭টি ফ্লোর, তিনটি হেলিপ্যাড, ৯টি লিফট, ঝুলন্ত বাগান, বলরুম, ওয়েদার রুম, জিমনেশিয়াম, পার্কিংয়ের জন্য ছয়টি তলা আর ছয় শ’ চাকর। বিশাল ধাতব তারজালির সঙ্গে লাগানো ২৭ তলা উঁচু ঘাসের খাড়া দেয়ালে তৈরি লনটি দেখার জন্য আমি একেবারেই প্রস্তুত ছিলাম না। কোনো কোনো জায়গায় ঘাস শুকিয়ে সুন্দর আয়তক্ষেত্রের মতো ঝরে পড়েছে। বোঝাই যাচ্ছে, ওপর থেকে পানি দেওয়ার যে ব্যবস্থা করা হয়েছিল, তা ঠিকমতো কাজ করেনি। বিস্তারিত »

সরকারের ব্যর্থ পানি কূটনীতি (দ্বিতীয় পর্ব)

. ইনামুল হক

inamul-huq-2-বাংলাদেশের আওয়ামী লীগ সরকার ভারতের মণিপুর রাজ্যে নির্মিতব্য টিপাইমুখ ড্যাম নিয়েও বেশ বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছে। সরকারের পররাষ্ট্র বিষয়ক উপদেষ্টা গওহর রিজভীর বিগত ১৩ ডিসেম্বর ২০১১ টিপাইমুখ ড্যাম নিয়ে পত্রিকায় একটি প্রবন্ধ লিখে নিবেদন করেন যে, বিষয়টি নিয়ে আবেগ ও রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গির উর্দ্ধে থেকে যুক্তিপূর্ণ এবং বৈজ্ঞানিক আলোচনা হওয়া দরকার।

টিপাইমুখ স্থানটি ভারতের মিজোরাম রাজ্যের কোলাশিব জেলা এবং মণিপুর রাজ্যের চূড়াচাঁদপুর জেলার সীমানায় অবস্থিত, যেখানে টিপাই নদী বরাক নদে এসে মিশেছে। এখানে বরাক নদ উত্তর পূর্বের কালা নাগা এলাকার ভেতর দিয়ে এসে একটি উল্টো বাঁক নিয়েছে। টিপাই নদীর উৎপত্তি মিয়ানমারে, যা’ দক্ষিণ দিক থেকে এসে এই বাঁকে এসে পড়েছে। বরাক এরপর ভূবন পাহাড় উপত্যকার ভেতর দিয়ে আসামের কাছাড় জেলার দিকে প্রবাহিত হয়েছে। পাহাড় ও সমতলের ভেতর দিয়ে এই নদটি আরও ১৮০ কিলোমিটার প্রবাহিত হয়ে অমলশিদের কাছে বাংলাদেশের সীমানা স্পর্শ করেছে। এখানে নদটি সুরমা ও কুশিয়ারা নামের দ’ুটি নদীতে ভাগ হয়ে বাংলাদেশের ভেতরে প্রবেশ করেছে। বিস্তারিত »

বন্ড – বড় ধরনের ঋণ এবং সুদের দুষ্টজাল

সাইদুল ইসলাম

money-1-সম্প্রতি পত্রিকার খবর থেকে জানা গেছে, ব্যাংক ব্যবস্থা থেকে রেকর্ড পরিমান ঋণ গ্রহনের পর এবার সরকার বিদেশী উৎস থেকে ঋণগ্রহনের উদ্যোগ নিয়েছে। দেশীয় ব্যাংকগুলোতে তারল্য তীব্র হওয়ায় রাষ্ট্রকে গ্যারান্টি দিয়ে সরকার উচ্চ সুদে ৫০ কোটি ডলার ঋণ নেয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছে। এজন্য সার্বভৌম বন্ড ছাড়ার উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। বন্ডের মেয়াদ, সুদের হার নির্ধারণসহ একটি কৌশলপত্র প্রণয়ন করছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এজন্য তিনটি বিদেশী ব্যাংক এইচএসবিসি, সিটি ব্যাংক এনএ ও স্টান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের সাথে অভিজ্ঞতা বিনিময় করা হয়েছে। সরকারী সূত্র বলছে, দাতা দেশ এবং সংস্থাগুলো থেকে কাঙ্খিত ঋণ না পাওয়ার কারনে সরকার বন্ড ছাড়ার দিকে ঝুঁকেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সার্বভৌম বা সভরেন বন্ড ছাড়ার কৌশল প্রণয়ন করতে বাংলাদেশ ব্যাংকের একজন ডেপুটি গভর্নরকে আহবায়ক করে একটি উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির দ্বিতীয় বৈঠকে সার্বভৌম বন্ড ছাড়ার জন্য একটি কৌশলপত্র প্রণয়ন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এ কৌশলপত্রের মধ্যে থাকবে বন্ডের মেয়াদ কত দিনের হবে, কী হারে ক্রেতা দেশকে সুদ দেয়া হবে এসব বিষয়। বিস্তারিত »

ইউরোপেই ভয়াবহ পারমাণবিক দুর্ঘটনার শঙ্কা

মোহাম্মদ হাসান শরীফ

Public domain image, royalty free stock photo from www.public-domain-image.comবিশ্ব এখন পারমাণবিক দুর্ঘটনার ঝুঁকিতে। আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে এ ধরণের বিপদের আশঙ্কা অনেক বেশি। মেইঞ্জের ম্যাক্স প্লাঙ্ক ইনস্টিটিউট ফর কেমিস্ট্রির বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, যেকোনো সময় ঘটে যেতে পারে চেরনোবিল ও ফুকুশিয়ার মতো পারমাণবিক দুর্ঘটনা। এমনকি আগে যেমনটা আশা করা হয়েছিল, বিপদের ঝুঁকি তার চেয়ে ২০০ গুণেরও বেশি। গবেষকেরা আরো দেখিয়েছেন, এ ধরণের ভয়াবহ দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে তেজষ্ক্রিয় সিজিয়াম১৩৭এর অর্ধেক পারমাণবিক চুল্লি থেকে এক হাজার কিলোমিটার দূরবর্তী এলাকাতেও ছড়িয়ে পড়তে পারে। বিস্তারিত »